ফায়ারফক্সের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাড-অনস – ০২

ফায়ারফক্সের কিছু প্রয়োজনীয় অ্যাড-অনের বর্ণনা নিচে দিলাম। দেখুন কাজে লাগে কিনা।

ইয়াহু! মেইল ওয়াচার (Yahoo! Mail Watcher) – এটি একটি প্রয়োজনীয় অ্যাড-অন। এ অ্যাড-অনটি চালু রাখলে নির্দিষ্ট সময় পরপর আপনার ইয়াহু মেইল চেক করবে এবং নতুন মেইল এলে আপনাকে জানাবে। ফলে আপনাকে কষ্ট করে ইয়াহুতে ঢুকে মেইল চেক করতে হবে না। এটি দিয়ে সয়ংক্রিয় মেইল চেক করতে অবশ্যই আপনার ইয়াহু মেইলে লগঅন থাকতে হবে। এটি এখান থেকে যোগ করতে পারবেন।

কালারফুল ট্যাবস (Colorful tabs) – এটি প্রয়োজনীয় অ্যাড-অন না। এটি আপনার ফায়ারফক্সের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এটি চালু রাখলে আপনার ট্যাব গুলো একেকটা একেক রং হয়ে যাবে। আপনি নিজেও ট্যাব এর রং নির্দিষ্ট করে দিতে পারবেন। এটি এখান থেকে যোগ করতে পারবেন।

ইমেজ ব্লক (Image block) – ওয়েব পেজে সবচেয়ে বেশী নেট খরচ হয় ইমেজ লোড হতে। আপনি চাইল এ অ্যাড-অনটি দিয়ে ইমেজ লোড ব্লক করতে পারবেন। এ অ্যাড-অনটি এখান থেকে যোগ করতে পারেন।

কী স্ক্র্যাম্বলার (Key Scrambler) – হ্যাকাররা বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনার পাসওয়ার্ড হ্যাক করার চেষ্টা করে। অনেক সময় হ্যাকাররা আপনার কম্পিউটারে আক্রমন করে বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনি কী-বোর্ডের কোন কি চাপেন তা তার কম্পিউটার থেকে দেখতে পারেন। আপনি “কী স্ক্র্যাম্বলার” অ্যাড-অনটি ব্যবহার করে হ্যাকার থেকে আপনার পাসওয়ার্ড রক্ষা করতে পারেন। এটি চালু রাখলে আপনি কোন কী চাপলে হ্যাকার তা না দেখে অন্য একটি কী দেখতে পাবে। এ অ্যাড-অনটি এখান থেকে যোগ করতে পারবেন।

স্ক্রাইব ফায়ার (ScribeFire) – এটি একটি সুন্দর এবং প্রয়োজনীয় অড-অন। আমরা বিভিন্ন ব্লগের পোষ্ট পড়ার সময় কোন পোষ্ট ভাল লাগলে তা নিজের ব্লগে দেই। এসময় এ অ্যাড-অনটি আপনাকে সাহায্য করতে পারবে। এটি দিয়ে ঐ ব্লগে থাকা অবস্থায় আপনি ঐ পোস্টটি আপনার ব্লগে পোষ্ট করতে পারবেন। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। কোন পোষ্ট আপনার ব্লগে প্রকাশ করতে ঐ পেজের উপর রাইট ক্লিক করে ScribeFire থেকে blog this page এ ক্লিক করুন। তারপর আপনার ব্লগের নাম এবং পাসওয়ার্ড দিতে হবে। তারপর নতুন যে উইন্ডোটি আসবে সেখানে পোস্টটি কপি-পেস্ট করে দিন এবং প্রয়োজনীয় লেখা লিখে Publish to “আপনার ব্লগের নাম” এ ক্লিক করুন। এটি ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস সহ আরও কিছু জনপ্রিয় ব্লগ সাইট সাপোর্ট করে।

আশা করি অ্যাড-অন গুলো কাজে লাগবে। কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন।

Advertisements

ফায়ারফক্সের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাড-অনস – ১

ফায়ারফক্সের কিছু প্রয়োজনীয় অড-অনস এর বর্ণনা আজ দিচ্ছি। দেখুন আপনার কাজে লাগে কিনা।
১. অ্যাড ব্লক (Adblock) – এটি ব্যবহার করা হয় বিজ্ঞাপন ব্লক করার জন্য। আমার মত বেশির ভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী লিমিট ব্যান্ডউইথের ইন্টারনেট ব্যবহার করি। তাই আমাদের হিসাব করে নেটে কাজ করতে হয়। আর বিভিন্ন সাইটে যে সব বিজ্ঞাপন থাকে তা আমাদের তেমন একটা লাগে না। কিন্তু সেগুলো ওয়েব পেজের সাথে ডাউনলোড হয়ে – এক. ওয়েব সাইট চালু হওয়ার গতি ধির করে দেয়, দুই. এতে আমাদের ব্যান্ডউইথ অকারণে খরচ হয়। তাই এ অড-অনটি অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত। এ অড-অনটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। এটি ইনস্টল করে দুটি ফিল্টার সিলেক্ট করে দিতে হয় তা না হলে এটি কাজ করবে না। এর জন্য এটি ইনস্টল করে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করুন। এবার Ctrl + Shift + E চাপুন। তাহলে “Adblock plus preferences” নামে একটি উইন্ডো আসবে। এখানে Filters মেনু থেকে Add filter subscription এ ক্লিক করুন। এবার লিস্ট থেকে EasyList (English) সিলেক্ট করে Add subscription বাটনে ক্লিক করুন। আবার Filters মেনু থেকে Add filter subscription এ ক্লিক করে লিস্ট থেকে Fanboy’s List (English) সিলেক্ট করে Add subscription বাটনে ক্লিক করুন। তারপর এটি সয়ংক্রিয় ফিল্টার আপডেট করে নিবে।

২. ফ্ল্যাসব্লক (Flashblock) – এর নাম শুনেই বুঝতে পারছেন এটি ফ্ল্যাস কনটেন্ট ব্লক করে দেয়। ওয়েব সাইটে আপনি যদি ফ্ল্যাস দিয়ে কোন কাজ না করেন তাহলে এটি দিয়ে ফ্ল্যাস কনটেন্ট ব্লক করে আপনার ওয়েব পেজ লোডের গতি বাড়াতে এবং ব্যান্ডউইথ খরচ বাচাতে পারেন। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

৩. প্রোকন ল্যাট (ProCon Latte) – ধরুন নেট ব্রাউজিং করছেন হটাৎ কোন পর্নো সাইট বা পর্নো কনটেন্ট সামনে চালু হল। এমন সময় যদি ছোট কেউ বা মুরব্বি ধরনের কেউ সামনে থাকে তখন কি অবস্থা হতে পারে তা তো বুঝতে পারছেন। এ ছাড়া পর্নো সাইটগুলোতে হ্যাকাররা ওতপেতে থাকে এবং সুযোগ মত কম্পিউটারের বারোটা বাজিয়ে দেয়। এসব পর্নো সাইট, কনটেন্ট এবং অনিরাপদ সাইট ব্লক করার জন্য প্রোকন ল্যাট অ্যাড-অনটি ব্যবহার করতে পারেন। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। এটি অনেক সময় ভাল সাইটকেও ব্লক করে। তখন পেজের উপরে Option নামে একটি বাটন আসে। সেখানে ক্লিক করে Continue ক্লিক করে Add current site বাটনে ক্লিক করে Reload ক্লিক করলেই সে সাইটটি আর ব্লক করবে না। আপনার বাসায় যদি অন্য কেউ বা ছোট কেউ নেট ইউজ করে তখন এটি দিয়ে রাখতে পারেন। এতে পাসওয়ার্ড দেয়ারও সুবিধা আছে।

৪. বাঙ্গালী বাংলাদেশ ডিকশনারি (Bangali Bangladesh Dictionary) – এটি বাংলা ডিকশনারি। বাংলা বানানে কোন ভুল হলে তা এটি ধরিয়ে দেবে। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। বানান সচেতন ব্যবহারকারীদের জন্য এটি আসলেই দারুন একটি অড-অন। অনেক সময় তাড়াতাড়ি লেখার সময় বাংলা বানানে ভুল হয় তখন এটি আপনাকে বানান ঠিক করতে সাহায্য করবে।

৫. ডাউনলোড স্ট্যাটাস বার (Download Statusbar) – এটি তেমন প্রয়োজনীয় কোন অড-অন না। আপনি কোন জিনিস ডাউনলোড করলে তা সাধারনত অন্য আরেকটি উইন্ডোতে দেখায়। কিন্তু এটি ইনস্টল করলে ডাউনলোড করা ফাইল গুলোর নাম ফায়ারফক্সের নিচে দেখাবে। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

৬. রিড ইট লেটার (Read it later) – ধরুন ব্লগ পড়ছেন। একটি সুন্দর ব্লগ পেলেন কিন্তু তখন পড়ার সময় নেই। তখন একে পরে পড়ার জন্য এ অড-অনটি ব্যবহার করতে পারেন। এর মাধ্যমে আপনি আপনার পেজটি পড়ে পড়ার জন্য রেখে দিতে পারেন। কোন সাইট পড়ে পড়ার জন্য রেখে দিতে চাইলে শুধু নিচের চিহ্নটিতে ক্লিক করলেই হবে।

আপনি যদি কোন পেজ অফলাইনে পড়ার জন্য রেখে দিতে চান তাহলে প্রথমে উপরের চিহ্নটিতে ক্লিক করে রিড ইট লেটারের চিহ্নতে ক্লিক করে নিচের চিহ্নতে ক্লিক করতে হবে।

অড-অনটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। কোন বড় লেখা বা ব্লগের লেখা অবসর সময়ে পড়ার জন্য এ অড-অনের কোন বিকল্প নেই।

৭. ফেসবুক চ্যাট বার (Facebook chat bar) – এটি তেমন প্রয়োজনীয় কোন অড-অন না। এটি আসলে ফেসবুকে আবেগ চিহ্ন দেয়ার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

৮. এফইবিই (FEBE) – এর পূর্ণরূপ হল Firefox Environment Backup Extension. অর্থাৎ এটি দিয়ে ফায়ারফক্সের সব অড-অন, সেটিংস, বুকমার্ক, পাসওয়ার্ড ইত্যাদির ব্যাকআপ রাখা যাবে। এটি এখান থেকে ডাউন লোড করতে পারেন। এটি দিয়ে ব্যাকআপ রাখলে নতুন করে উইন্ডোজ ইনস্টল করার পরে আর কষ্ট করে আপনাকে আবার অড-অন গুলো ডাউনলোড করতে হবে না। ব্যাকআপ থেকে ইনস্টল করতে পারবেন।
আজকে এ পর্যন্তই। আশা করি অড-অন গুলো কাজে লাগবে।