বাংলা লেখা ছোট দেখা গেলে সহজ সমাধান

বাংলা ছোট দেখার প্রধান কারন ছোট ফন্ট। এছাড়া ডিফল্ট ফন্ট হিসেবে vrinda নামের একটি ফন্ট দেয়া থাকে। যার সাইজ তুলনা মুলক ছোট। এখন যদি vrinda ফন্টটিকে যদি কোন ভাবে বড় করা যায় তাহলে ফন্ট বড় দেখা যাবে। ফন্ট বড় দেখার জন্য vrinda ফন্টটির আরেকটি ভার্সন এখান থেকে ডাউনলোড করুন। এবার Run এ গিয়ে Fonts লিখে Enter দিন। এবার ফোল্ডারটি থেকে vrinda নামের ফন্টটি খুজে বের করুন এবং তা Delete কী চেপে মুছে ফেলুন। মুছে ফেলার সময় কোন প্রোগ্রাম চালু রাখবেন না, রাখলে ফন্টটি ডিলিট নাও হতে পারে। এবার ডাউনলোড করা ফাইলটি এক্সট্রাক্ট করে “Vrinda (Siyamrupali).ttf” ফন্টটি Fonts ফোল্ডারে কপি করে রাখুন। সব ঠিক মত হলে এখন আপনি বাংলা লেখা বড় দেখতে পারবেন। এছাড়া ওয়েবসাইটে লেখা বড় দেখার জন্য Ctrl চেপে মাউসের হুইল সামনে পেছনে করে ফন্ট বড়-ছোট করতে পারেন।

▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬

আরো দেখতে পারেনঃ

নোটপ্যাডে বাংলা লেখা

আগের পোষ্টে দেখিয়ে ছিলাম কিভাবে নোটপ্যাডকে ডায়রি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এখন দেখাব কিভাবে নোটপ্যাডে বাংলা লেখা যায়। এতে আপনি আপনার নোটপ্যাড ডায়রিতে বাংলা লিখতে পারবেন। প্রথমে এখান থেকে Vrinda এর আপডেট ভার্সনটি ডাউনলোড করুন এবং তা এক্সট্রাক্ট করে C:\WINDOWS\Fonts ফোল্ডারে রাখুন। এবার নোটপ্যাড ওপেন করুন। তারপর Format মেনু থেকে Font ক্লিক করুন। এবার Font এ Vrinda সিলেক্ট করুন এবং Size দিন 10 এবং OK দিয়ে বের হয়ে আসুন। এবার আপনার যে টেক্সট ফাইলে বাংলা লিখতে চান তা ওপেন করুন। তারপর File থেকে Save As এ ক্লিক করুন। Encoding থেকে Unicode সিলেক্ট করুন এবং Save ক্লিক করে বের হয়ে আসুন। এখন আপনি নোটপ্যাডে বাংলা লিখতে পারবেন।

ওয়েব সাইটে বাংলা না দেখা বা বেশী ছোট দেখার কারন ও প্রতিকার

কম্পিউটারে ইউনিকোড সাপোর্ট না থাকলে এবং প্রয়োজনীয় বাংলা ফন্ট না থাকলে সাধারনত বাংলা দেখা যায় না। এছাড়া ব্রাউজার বেশী পুরনো হলেও বাংলা দেখা না যেতে পারে। উইন্ডোজ এক্সপিতে সাধারনত ইউনিকোড সাপোর্ট থাকে না। উইন্ডোজ ভিস্তা ও সেভেন এ ইউনিকোড সাপোর্ট দেয়া থাকে। তাই যে সব কম্পিউটারে ইউনিকোড সাপোর্ট দেয়া নেই সেগুলোতে ইউনিকোড সাপোর্ট ইনস্টল করে নিতে হয়। বাংলা লেখা বেশী ছোট দেখার কার প্রধানত ফন্ট।
বাংলা দেখার জন্য বা বড় দেখার জন্য এখান থেকে অভ্র ইনস্টল করুন বা এখান থেকে জিপ ফাইলটি ডাউনলোড করে iComplex ইনস্টল করে নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন। iComplex উইন্ডোজে ইউনিকোড সাপোর্টের জন্য প্রয়োজনীয় ফাইল উইন্ডোজে ইনস্টল করে দেয়।
১. Siyamrupali ফন্টটি C:\WINDOWS\Fonts ফোল্ডারে রাখুন।

২. ফায়ারফক্স চালু করুন।
৩. Tools মেনু থেকে Option ক্লিক করুন।

৪. Content ট্যাব ক্লিক করুন এবং Advanced বাটন ক্লিক করুন।

৫. Fonts forকে Bangla, Serifকে Siyam Rupaliএবং Sans-serifকে Siyam Rupali তে পরিবর্তন করুন।

৬. OK দুইবার ক্লিক করে বের হয়ে আসুন এবং ফায়ার ফক্স রিস্টার্ট করুন।
আপনার যদি শুধু ফন্টে সমস্যা হয় তাহলে শুধু ধাপ গুলো অনুসরন করলে হবে। এখানে Siyam Rupali ফন্ট ব্যবহার করা হয়েছে। কারন এ ফন্টটির আকার তুলনামূলক বড়। আপনি কী বোর্ডের Ctrl চেপে মাউসের হুইল সামনে ঘুরিয়েও লেখা বড় করতে পারেন।

▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬

আরো দেখতে পারেনঃ

নোটপ্যাডের সাহায্যে ফোল্ডারে আইকন ও পিকচার যোগ করা

প্রথমে ফোল্ডারে পিকচার যোগ করার পদ্ধতি বলি। প্রথমে নোটপ্যাড চালু করুন এবং নিচের লাইন গুলো লিখুন।
[ExtShellFolderViews]
{BE098140-A513-11D0-A3A4-00C04FD706EC}={BE098140-A513-11D0-A3A4-00C04FD706EC}
[{BE098140-A513-11D0-A3A4-00C04FD706EC}]
Attributes=1
IconArea_Image=Picture.JPG

এবার যে ফোল্ডারের ব্যাকগ্রাউন্ডে ছবি যোগ করতে চান সে ফোল্ডারে লেখাগুলো desktop.ini নামে সেভ করুন এবং ঐ ফোল্ডারে Picture.jpg নামে একটি JPEG ফরমেটের পিকচার ফাইল রাখুন। এবার F5 দিয়ে ফোল্ডার রিফ্রেস করলে ফোল্ডারের ব্যাকগ্রাউন্ডে আপনার দেয়া ছবি দেখতে পাবেন।
ফোল্ডারে আইকন যোগ করতে প্রথমে নোটপ্যাড চালু করুন এবং নিচের লাইন গুলো লিখুন।
[.ShellClassInfo]
IconFile=Icon.ico
IconIndex=0

এবার যে ফোল্ডারের আইকন যোগ করতে চান সে ফোল্ডারে লেখাগুলো desktop.ini নামে সেভ করুন এবং ঐ ফোল্ডারে Icon.ico নামে একটি আইকন ফাইল রাখুন। এবার F5 দিয়ে ফোল্ডার রিফ্রেস করলে ফোল্ডারের আইকনের পরিবর্তন দেখতে পাবেন।
ফোল্ডারে আইকন ও পিকচার একসাথে যোগ করতে চাইলে প্রথমে ফোল্ডারে দেয়া কোডগুলো লিখে আইকনে দেয়া কোড গুলো লিখতে হবে। তারপর desktop.ini নামে সেভ করে পিকচার ও আইকন ফাইল দুটি ঐ ফোল্ডারে দিতে হবে।
বোনাস হিসেবে কিছু আকর্ষনীয় আইকন এখানে দেয়া হল।

বাংলা লেখার অসাধারন একটি সফটওয়্যার

বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। বর্তমানে আমরা কম্পিউটারের প্রায় সব যায়গাতে বাংলা ব্যবহার করছি। বাংলা লেখার জন্য অনেকে বিজয় ব্যবহার করেন। আমি বিজয় বায়ান্নো ব্যবহার করেছিলাম, এর দাম মাত্র ১০০৳ ছিল তার কারনে। কিন্তু ব্যবহার করে দেখলাম এটি দিয়ে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ছাড়া অন্য কোথাও বাংলা লেখা যায় না। পারে বাংলা লেখার জন্য আরেকটি দারুন সফটওয়্যার পেলাম। এটিতে বিজয়ের চেয়ে বেশী সুবিধা থাকলেও এটি একদম ফ্রি। এর নাম অভ্র। এর ইন্টারফেসটিও খুব সুন্দর।
এটিতে বিভিন্ন পদ্ধতিতে বাংলা লেখা যায়। এগুলো হল ফোনেটিক, অভ্র ইজি, বর্ননা, জাতীয় এবং ইউনিবিজয়। “ফোনেটিক” হচ্ছে ইরেজী দিয়ে বাংলা লেখা পদ্ধতি। এপদ্ধতিতে ইংরেজীতে “amar” লিখলে বাংলায় “আমার” লেখা দেখা যাবে। যারা বাংলা টাইপিং এ নতুন তাদের জন্য এ পদ্ধতি। “অভ্র ইজি” হচ্ছে অভ্রর নিজস্ব লেআউট। “বর্ননা” দিয়েও সহযে বাংলা লেখা যায়। এর লেআউট এমন ভাবে সাজানো হয়েছে যাতে যে কেউ সহজে বিভিন্ন অক্ষর খুজে বের করতে পারে। যেমন J দিয়ে জ, ঝ ; R দিয়ে র, ৃ ইত্যাদি। “জাতীয়” হচ্ছে জাতীয় কী-বোর্ড লেআউট। “ইউনিবিজয়” মাধ্যমে প্রচলিত বিজয় কী-বোর্ডের লেআউট এ লেখা যাবে। তবে বিজয়ের সাথে এর ইউনিবিজয়ের লেআউটের একটু পার্থক্য আছে। এটি দিয়ে ইউনিকোড সাপোর্ট করে এমন সব প্রোগ্রামে বাংলা লেখা যাবে। এদের নিজস্ব কনভার্টারও আছে। যার মাধ্যমে আপনি বিজয়ে লেখা ফাইলকে ইউনিকোডে রূপান্তর করতে পারবেন। এটি দিয়ে যে কোন ওয়েব সাইটেও বাংলা লেখা যাবে। এর আরেকটি সুবিধা হল এর পোর্টেবল ভার্সন আছে। এতে একে যেকোন যায়গায় পেনড্রাইভের মাধ্যমে নিয়ে যেতে পারবেন।

অভ্র ডাউনলোড (১২.৩৮ মেগাবাইট)

অভ্র কনভার্টার ডাউনলোড (২.৩৯ মেগাবাইট)

পোর্টেবল অভ্র ডাউনলোড (৭.৬০ মেগাবাইট)

আনকম্প্রেস্ড করার জন্য উইনরার এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

ফাইল ও ফোল্ডারের নাম বাংলায় লেখার পদ্ধতি

আমরা সাধারনত ফাইল বা ফোল্ডারের নাম ইংরেজীতে লিখি। তবে এগুলো চাইলে বাংলাতেও লিখতে পারেন। এর জন্য প্রথমে অভ্র নামের একটি সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হবে। অভ্রর ডাউনলোড লিঙ্ক নিচে দেয়া আছে। এর সাথে দেয়া সব ফন্ট গুলো উইন্ডোজের ফন্ট ফোল্ডারে রাখতে হবে। সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করার পর নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুনঃ
১. প্রথমে ডেস্কটপে রাইট ক্লিক করে প্রোপার্টিজে যান।
২. Appearance ট্যাবে ক্লিক করুন।
৩. Advanced বাটনে ক্লিক করুন।
৪. Item বক্স থেকে Icon সিলেক্ট করুন।
৫. এবার Font বক্স থেকে Siyam Rupali ফন্টটি সিলেক্ট করুন এবং OK ক্লিক করে প্রোপার্টিজ থেকে বেরিয়ে আসুন।
এবার যেকোন ফাইল বা ফোল্ডারের নাম লেখার সময় অভ্র চালু করে বাংলা মোড চালু করে বাংলায় নাম লিখতে পারবেন।

অভ্র ডাইনলোড

আনকম্প্রেস্ড করার জন্য উইনরার এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।

সমস্যা হলে মেইল করবেন।