উইন্ডোজ ৮ এ ফায়ারফক্স এ অকারনে রং পরিবর্তন হওয়া- সমস্যার সমাধান

বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভাল। এই পোষ্টটি লেখা পর্যন্ত উইন্ডোজ ৮ এর কনজিউমার প্রিভিউ পর্যন্ত বের হয়েছে। অনেকে ব্যবহারও করছেন। উইন্ডোজ ৮ এর সুন্দর্য এবং নতুন অকর্ষনীয় রূপ এবং প্রধানত এর স্পিড দেখে আমিও এটিই ব্যবহার করছি। এটি বেটা ভার্সন হলেও মোটামুটি বড় কোন বাগ আমার চোখে পড়ে নি। এর স্পিডও মারাত্মক হয়েছে।

যাই হোক এতে প্রধান একটি সমস্যা হচ্ছে ডটনেট ইনস্টল না হওয়া, যার সমাধান এখানে দেয়া দিয়েছি। দেখে আসতে পারেন।

এর পরে আরেকটি সমস্যা অনেকের পিসিতে হতে পারে। তা হল ফায়ারফক্স চালু করলে এর টাইটেল বার এবং ওয়েব সাইটের বিভিন্ন এলিমেন্টের রং অকারনে বার বার পরিবর্তন হতে থাকা, নিচের সমস্যাটির দুটি স্ক্রিনসট দেয়া হলঃ

এটির কারন কি?

এটি আসলে কি কারনে হয় তা নিশ্চিত না। গুগল ঘেটে যা বুঝলাম তাহলো সম্ভবত nVidia এর গ্রাফিক্স কার্ড থাকলে এটি হতে পারে। আশা করি nVidia উইন্ডোজ ৮ সস্পূর্ন বের হলে এ বাগ ঠিক করবে।

এ সমস্যা কি ভাবে সমাধান করব?

এ সমস্যার সমাধান খুবই সোজা। শুধু নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুনঃ

১. ফায়ারফক্স চালু করে Firefox(Memu button) > Options এ ক্লিক করুন।

২. এবার Options উইন্ডোর Advanced ভাগ থেকে General ট্যাব এ Browsing ভাগ থেকে Use hardware acceleration when available টিক চিহ্নটি তুলে দিন এবং OK তে ক্লিক করুন। ব্যস! সব দেখুন ঠিক হয়ে গেছে 🙂

আশা করি সমস্যার সমাধান হয়ে গেছে। এরপরও সমস্যা হলে কমেন্ট বক্স সবসময় আপনাদের জন্য খোলা 🙂

আজ এ পর্যন্তই…

Advertisements

ফায়ারফক্স (Firefox) এবং থান্ডারবার্ড (Thunderbird) এর যে কোন ভার্সনে অজীবনের জন্য বাংলা সমস্যার সমাধান

আজ একটি মারাত্তক সমস্যার সহজ একটি সমাধান দেব। আমরা ইন্টারনেট ব্রাউজ করার সময় বেশী অসুবিধায় পড়ি বাংলা নিয়ে। যারা ইংলিশ নিয়ে ঘাটা ঘাটি করেন তাদের কথা ভিন্ন। কিন্তু আমার মত বাংলা প্রেমিকদের বাংলার জন্য অনেক কষ্ট করতে হয়। কিছু ছোটখাট ইতিহাস বলে আজকের পোষ্টটা শুরু করি।

ফায়ারফক্স ও থান্ডারবার্ডে ইউনিকোড যোগ হওয়ার পর বাংলা সমস্যা হলে শুধু অভ্র ইনস্টল করলেই ঠিক হয়ে যেত। পরে মজিলার নতুন ভার্সন ৪ বের করার পর থেকে আবার বাংলা নিয়ে সমস্যা তৈরি হল। দেখা গেল ওয়েব পেজে বাংলা দেখা গেলেও টাইটেল বারে ভাল করে বাংলা দেখা যেত না বা এখন নতুন ভার্সন গুলোতেও যায় না।

ফায়ারফক্সের অডঅনেও এখন বাংলা সমস্যা করে। যেমনঃ Echofon

আর থান্ডারবার্ডের নতুন ভার্সনে তো কোন ভাবেই ঠিক করে বাংলা আসে না।

তখন রাগ করে গেলাম উইনন্ডোজ সেভেনে। সেখানে বাংলাতে কোন সমস্যা হল না। কিন্তু সমস্যা হল এক্সপি থেকে উইন্ডোজ সেভেন ধির গতিতে কাজ করে। তাই বাধ্য হয়ে আবার এক্সপিতে ফিরে এলাম। এবার তো অবস্থা খারাপ, বাংলা সমস্যা দুরকরতে চাইলে স্পিডে কাজ করতে পারব না আবার স্পিডে কাজ করলে বাংলা সমস্যা নিয়েই থাকতে হবে 😦

এরকম জীবন-মরন অবস্থায় সামান্য গবেষনা করে একটি সমাধান বের করলাম। এটি ১০০% কার্যকর। আজ এ পদ্ধতিটিই আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

এ পদ্ধতিটি ব্যবহার করতে হলে আপনার কম্পিউটারে অভ্র নতুন ভার্সন ইনস্টল থাকতে হবে। অভ্র যদি আপনার ইনস্টল করা না থাকে তাহলে এখান থেকে ডাউনলোড করে ইনস্টল করে ফেলুন।

এবার দেখা যাক পদ্ধতিটা কি! পদ্ধতিটা খুব সহজ। শুধু ফায়ারফক্স এবং থান্ডারবার্ডের কিছু ইনসাইড সেটিং পরিবর্তন করতে হবে। তাহলে কাজ শুরু করা যাক।

অভ্র ইন্সটল করে কম্পিউটার রিস্টার্ট করে নিন। তারপর ফায়ারফক্স চালু করুন। আমি এখানে ফায়ারফক্স ৬ এর ছবি দিয়েছি। এর অন্য ভার্সনেও একই ভাবে এ পদ্ধতিটি ব্যবহার করা যাবে।

ফায়ারফক্স চালু হলে নতুন একটি ট্যাব চালু করুন এবং অ্যাড্রেস বারে লিখুন about:config এবং লিখে Enter দিন।

তাহলে যে পেজ আসবে সেখান থেকে “I’ll be careful, I Promise!” বাটনে ক্লিক করুন।

তাহলে আপনার সামনে ফায়ারফক্সের সব সেটিংয়ের একটি তালিকা চলে আসবে। এবার Filter বক্সে লিখুন beng

তাহলে দেখবেন আপনার সামনে beng যুক্ত আছে এরকম কিছু সেটিংয়ের লিস্ট দেখা যাচ্ছে। এখান থেকে ছয়টি সেটিং পরিবর্তন করতে হবে। প্রথমে font.name-list.monospace.x-beng লেখাটি খুজে বের করে এর উপর ডাবল ক্লিক করুন। যে ইনপুট বক্সটি আসবে সেখানে লিখুন Siyam Rupali এবং লিখে OK বাটনে ক্লিক করুন।

তারপর এর পরের পাচটি সেটিং ও ডাবল ক্লিক করে Siyam Rupali লিখে পূরণ করুন।

সাবধানতার জন্য আমি নিচে ছবির সাথে ছয়টি সেটিংসের সবকটির নামও নিচে লিখে দিলাম।

font.name-list.monospace.x-beng
font.name-list.sans-serif.x-beng
font.name-list.serif.x-beng
font.name.monospace.x-beng
font.name.sans-serif.x-beng
font.name.serif.x-beng

সবগুলো সেটিং করা হয়ে গেলে ফায়ারফক্স একবার রিস্টার্ট করুন। তারপর দেখুন ঝকঝকে বাংলা 🙂

এবার আসা যাক থান্ডারবার্ডে। আমরা তো সহজেই ফায়ারফক্সের ইনসাইড সেটিং অ্যাড্রেসবারের মাধ্যমে বের করলাম। এবার বলুন তো থান্ডারবার্ডে তো অ্যাড্রেসবার নেই! এবার কি করবেন?

আমিও এ চিন্ততে পড়েছিলাম 🙂 কিন্তু পরে মনে পড়লে ‘সোজা আঙ্গুলে ঘি না উঠলে আঙ্গুল বাকা করতে হয়’ 🙂

তাই এবার আমরা আঙ্গুল বাকা করে লুকনো সেটিং বের করব 🙂 আপনাদের আঙ্গুল বাকাতে হবে না, ছোট একটি কাজ করতে হবে শুধু 🙂

প্রথমে থান্ডারবার্ড চালু করুন। তারপর Tools মেনু থেকে Options এ ক্লিক করুন। তারপর General ট্যাব থেকে “When Thunderbird launches, show the Start Page in the message area” তে টিক চিহ্ন দিন এবং Location বক্সে লিখুন About:config এবং লিখে OK বাটনে ক্লিক করুন। এবং থান্ডারবার্ড রিস্টার্ট করুন।

তাহলে দেখতে পাবেন থান্ডারবার্ডে নিচের দিকে ফায়ারফক্সে দেখা সেই চেনা মুখ 🙂 এবার আগের মতই একই কাজ করুন। একই জিনিস আর লিখতে ইচ্ছে হচ্ছে না, তাই আমি নিচে শুধু চিত্র গুলো দিলাম। সমস্যা হলে উপরে আরেকবার চোখ বুলিয়ে আসুন।

সেটিংগুলো ঠিক করা হয়ে গেলে আবার Tools থেকে Options এ ক্লিক করে General ট্যাব থেকে “When Thunderbird launches, show the Start Page in the message area” থেকে টিক উঠিয়ে OK দিয়ে থান্ডারবার্ড রিস্টার্ট করুন।

তারপর থান্ডারবার্ডেও দেখুন ঝকঝকে বাংলা 🙂

আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি পোষ্টটি সহজ করে লিখার জন্য। তারপরও বুঝতে কোন সমস্যা হলে বা অন্য কোন সমস্যা হলে কমেন্টে বলবেন। আজ এ পর্যন্তই।

ধন্যবাদ।

আপডেটঃ

নিচের কোন ফন্টটি আপনার ভালো লাগছে দেখুন তোঃ

সিয়াম রুপালী – ফন্ট | Siyam Rupali – Font

নির্মালা ইউআই – ফন্ট | Nirmala UI – Font

যদি সিয়াম রুপালী ফন্ট ভাল লাগে তাহলে উপরের দেয়া নিয়ম অনুসরণ করলেই হবে।
আর যদি নির্মালা ইউআই ফন্টটা ভাল লাগো তাহলে নিচের কাজ গুলো উপরের কাজ গুলোর সাথে অতিরিক্ত করুনঃ

প্রথমে নিচের লিঙ্ক থেকে “Nirmala UI (Win8 Full).zip” ফাইলটা ডাউনলোড করে এক্সট্রাক্ট করে ফন্ট ফাইল দুটোC:” বা “আপনার সিস্টেম ড্রাইভ\Windows\Fonts” ফোল্ডারে রাখুন।

http://www.mediafire.com/?q1cyc15lby311bb

দ্রষ্টব্যঃ যারা উইন্ডোজ ৮ ব্যবহার করছেন তাদের ফন্টটা ডাউনলোড করতে হবে না। ফন্টটা ডিফল্ট ভাবেই উইন্ডোজ ৮ এ দেয়া আছে 🙂

এবার উপরের নিয়মেই New Tab > about:config > Search “Beng” এ গিয়ে-

উপরের যে স্থান গুলোতে “Siyam Rupali” দেয়া হয়েছে সে স্থান গুলোতে একই ভাবে পরিবর্তন করে লিখুন “Nirmala UI“.

তাহলেই দেখুন ফন্ট পরিবর্তন হয়ে গেছে। এইটাও ফায়ারফক্স (যে কোন সংস্করণ) এবং থান্ডারবার্ড (যে কোন সংস্করণ) দুটোতেই কাজ করবে।

ধন্যবাদ।

বিঃ দ্রঃ এ ট্রিক্সটি ফায়ারফক্স এবং থান্ডারবার্ডের যে কোন সংস্করণে ১০০% কার্যকর।

▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬▬

আরো দেখতে পারেনঃ

যাদের ইন্টারনেট স্পিড কম তাদের জন্য পেজ দ্রুত লোড করার একটি টিপস এবং ফেসবুক সম্পর্কিত একটি টিপস

যাদের ইন্টারনেট স্পিড কম তাদের কোন সাইটে ঢোকার সময় হা করে বসে থাকতে হয়। আমার মত যাদের নেট স্পিড ৩ কেবি/সেকেন্ড পার হয় না তাদের জন্য ফায়ারফক্সের একটা টিপস দিচ্ছি। আপনি ফায়ারফক্সের ক্যাশ বাড়াতে পারেন এতে ওয়েব সাইট দ্রুত লোড হবে। কারন ক্যাশে কোন ওয়েব সাইটে যে সব জিনিস বার বার লোড করতে হয় সেগুলো সংরক্ষন করে। এতে ঐ ওয়েব সাইট চালু করলে ইন্টারনেট থেকে শুধু যে গুলো পরিবর্তন হয় বেশীর ভাগ সময় শুধু লেখাই পরিবর্তন হয় সেগুলো লোড করে। এতে নেটের উপর চাপ কমে এবং আপনার কাছে মনে হবে ওয়েব সাইট দ্রুত লোড হয়েছে। ক্যাশ বাড়ানোর জন্য ফায়ারফক্সের Tools থেকে Options এ ক্লিক করুন। তারপর Advanced ট্যাব থেকে Network ট্যাবে ক্লিক করুন। এবার Use up to বক্সে 256 বা আপনি যত মেগাবাইট ক্যাশের সাইজ দিতে চান দিয়ে OK তে ক্লিক করুন। ক্যাশ যত বড় হবে তত বেশী ওয়েব সাইট আপনার ক্যাশে জমা হতে পারবে।

ফেসবুকের জন্য এবার একটি টিপস দেই। যারা ফেসবুকে চ্যাট করেন না, শুধু নিউজ ফিড দেখেন তারা ফেসবুক m.facebook.com ঠিকানা দিয়ে ফেসবুকে ঢুকতে পারেন। এতে আপনার নেট স্পিড কম হলেও দেখবেন কত দ্রুত চালু হবে। m.facebook.com হল ফেসবুকের মোবাইল ভার্সন। আর আপনি চ্যাট করার জন্য ডিগসবাই (Digsby) ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনি কম নেট ইউজ করে শান্তি মত চ্যাট করতে পারবেন। কারন ডিগসবাই খুব কম নেট ইউজ করে। আজ এ পর্যন্ত। ভাল লাগলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

অ্যাড দিস (Add This) – একটি অ্যাড-অন দিয়েই যে কোন পেজ যে কোন শেয়ারিং সাইটে শেয়ার করুন + ব্লগ বা যে কোন সাইটে দেয়ার জন্য শেয়ার বাটন

নেটে যখন কোন জিনিস ভাল লাগে তখন তা বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ইচ্ছে করে। তবে দেখা যায় অনেক সময় বিভিন্ন সাইটে বা সব পেজে শেয়ার করার অপশন থাকে না। আবার আপনি যেখানে শেয়ার করতে চান হয়তো সে ফাংশনটি সেখানে দেয়া নেই। তখন হয়তো আপনাকে লিঙ্কটি কপি পেস্ট করে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে হয়। আজ একটি সুন্দর অ্যাড-অন দেব যা ৩০০ এর উপরে শেয়ারিং সাইট সাপোর্ট করে। এর নাম অ্যাডদিস (Add This)। এটি এখানে থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। কোন পেজ বা সাইট আপনি শেয়ার করতে চাইলে অ্যাডদিস অ্যাড-অনটি চালু অবস্থায় শুধু ঐ পেজের উপর রাইট ক্লিক করে AddThis থেকে আপনি কোথায় শেয়ার করতে চান সেটিতে ক্লিক করুন। এতে ডিফল্ট হিসেবে সেসব সাইট থাকে তা আপনি Tools > AddThis > Options এ গিয়ে কমবেশী করতে পারবেন। অ্যাড-অনটি ডাউনলোড করলে সব শেয়ারিং সাইটের নাম জানতে পারবেন। এতে কিছু জ্ঞান আহরণ হবে।

আপনার সাইটে বা ব্লগে অ্যাডদিস এর শেয়ার বাটনও আপনি চাইলে যোগ করতে পারেন। এর জন্য কোন টাকা বা রেজিষ্ট্রেশনের প্রয়োজন নেই। শুধু অ্যাডদিস এর ওয়েব সাইটে গিয়ে আপনার ইচ্ছে মত বাটন তৈরি করে নিতে পারবেন। অ্যাডদিস এর ঠিকানা www.addthis.com । অ্যাডদিস এর শেয়ার বাটন ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস (.কম ও .অর্গ) সহ যেকোন সাইটে যোগ। করতে পারেন। শেয়ার বাটন যোগ করতে কোন সমস্যা হলে কমেন্টে বলবেন। আশা করি অ্যাড-অনটি কাজে লাগবে। ভাল লাগলে কমেন্ট করবেন।

ইকোফোন (Echofon) – টুইটার ব্যবহারকারীদের জন্য ফায়ারফক্সের একটি জনপ্রিয় অ্যাড-অন

ফেসবুকের মত টুইটারও এখন ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হচ্ছে। এটি আসলেই মজার একটি সোসাল নেটওয়ার্কিং সাইট। যারা ব্যবহার করেন তারা জানেন এটি ব্যবহার করতে কত মজা। ফেসবুকে আপনাকে জিজ্ঞাসা করা হয় What’s on your mind? আর টুইটারে জিজ্ঞাসা করা হয় What’s happening? অর্থাৎ কি ঘটছে? আপনি টুইটার দিয়ে আপনার আসে পাশে কি ঘটছে, আপনি কি করছেন, আপনার এখন কি ইচ্ছে হচ্ছে বা কি করতে ইচ্ছে হচ্ছে ইত্যাদি সার্বক্ষনিক আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। টুইটার যারা ব্যবহার করেন না তারা ব্যবহার করে দেখুন আশা করি ভাল লাগবে। আজ টুইটার ব্যবহার করার জন্য ফায়ারফক্সের জনপ্রিয় একটি অ্যাড-অন শেয়ার করব। এর নাম ইকোফোন (echofon) অ্যাড-অনটি এখানে ক্লিক করে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারেন। এতে টুইটারের সব সুবিধা ব্যবহার করা যাবে। নিচে এর সুবিধা গুলো বিস্তারিত বর্ণনা করা হল।

এ অ্যাড-অনটি চালু করলে ফায়ারফক্সের ডানে নিচের দিকে ইকোফোনের চিহ্ন আসবে। চিহ্নতে ক্লিক করলে ইকোফোন উইন্ডো দেখতে পাবেন। উইন্ডোটি দেখতে নিচের মত।

এখানে আপনার নতুন পুরনো সব টুইট দেখতে পাবেন। নতুন টুইট এলে এটি আপনাকে নটিফাই উইন্ডোর মাধ্যমে নতুন টুইটটি দেখাবে। অ্যাড-অনটি থেকে যে কোন টুইট রিটুইট করতে পারবেন। এর জন্য যে টুইটটি রিটুইট করতে চান তার উপর মাউস পয়েন্টার এনে রাইট ক্লিক করে Retweet এ ক্লিক করুন। রিটুইট ও কমেন্ট এক সাথে করতে চাইলে যে টুইটের রিটুইট ও কমেন্ট একসাথে করতে চান তার উপর মাউস পয়েন্টার এনে রাইট ক্লিক করে Retweet with Comment এ ক্লিক করুন। এর উইন্ডো থেকে আপনার যে কোন টুইট ডিলিটও করতে পারবেন। এর জন্য আপনার টুইটের উপর রাইট ক্লিক করে Delete this tweet এ ক্লিক করুন। এর উইন্ডোতে কে কখন টুইট করেছে তাও দেখতে পারবেন। এর উইন্ডো থেকে কোন টুইটের রিপ্লে ও করতে পারবেন। কোন টুইটের রিপ্লে করতে সে টুইটের উপর মাউস পয়েন্ট নিয়ে যেতে হবে, তাহলে দুটি চিহ্ন আসবে সেখান থেকে তীর চিহ্নতে ক্লিক করে রিপ্লে পাঠাতে পারবেন।

এ অ্যাড-অনটি সয়ংক্রিয় টুইট আপডেট করে। আর এ অ্যাড-অনটি খুব সামান্য ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে। এটি দিয়ে আপনার ফেসবুকের স্ট্যাটাসও পরিবর্তন করতে পরবেন। টুইটার ও ফেসবুকের স্ট্যাটাস একসাথে পরিবর্তন করার পদ্ধতি এখানে ক্লিক করে দেখে আসতে পারেন। অ্যাড-অনটি ডিফল্ট হিসেবে ১ মিনিট পরপর টুইট আপডেট করে। আপনি টুইট আপডেট টাইম সর্বোচ্চ ৫ মিনিট ঠিক করে দিতে পারবেন। এর জন্য ইকোফোন এর লোগোর উপর রাইট ক্লিক করে Preferences এ ক্লিক করুন। তারপর Get tweets বক্স থেকে Every 5 minutes এ ক্লিক করুন।

তবে এ সময় আরেকটি পদ্ধতিতে আপনি বাড়িয়ে নিতে পারেন। এর জন্য ফায়ার ফক্সের টাইটেল বক্সে লিখুন about:config এবং এন্টার দিয়ে I’ll be careful, I promise! বাটনে ক্লিক করুন। এবার Filter বক্সে লিখুন Extensions.twitternotifier.interval তাহলে নিচের দিকে একই রকম আরেকটি লেখা দেখতে পাবেন। সেখানে ডাবল ক্লিক করুন। তাহলে Enter integer value নামে একটি বক্স আসবে। সেখানে কতক্ষণ পর টুইট আপডেট করতে চান (যেমন 15) সেই সংখ্যাটি লিখে OK ক্লিক করুন।

এ অ্যাড-অন চালু থাকলে আপনার ফায়ারফক্সের অ্যাড্রেস বারে @ লিখে টুইটারের যে কারও ইউজার নেম লিখলে ইকোফোন সয়ংক্রিয় তার প্রোফাইলে নিয়ে যাবে। আশা করি টুইটার ব্যবহারকারীদের অ্যাড-অনটি কাজে লাগবে। পোষ্টটি ভাল লাগলে কমেন্ট করবেন।

ইউনিকোড লিঙ্ককে ছোট করার সহজ পদ্ধতি

বিভিন্ন কাজের জন্য ওয়েব সাইটের লিঙ্ক ছোট করতে হয়। বিশেষ করে টুইটার ব্যবহারের সময় লিঙ্ক ছোট করার প্রয়োজন পড়ে। লিঙ্ক ছোট করার জন্য বিভিন্ন সাইট ফ্রি সার্ভিস দেয়। কিন্তু দেখা যায় ইউনিকোডের ব্যবহার আছে এমন লিঙ্ক ছোট করা হলে তা কাজ করে না। কারন সাধারনত যে সব সাইটে লিঙ্ক ছোট করা হয় সে সব সাইট ইউনিকোড সাপোর্ট করে না। আমাকে এরকম সমস্যায় পড়তে হয়েছিল। তখন গুগলে খুজে এর সুন্দর একটি সমাধান পেলাম। তা আজকে শেয়ার করছি। এর জন্য ফায়ারফক্স লাগবে। যে সব ব্রাউজারে বুকমার্ক করা যায় সেগুলোতেও এটি কাজ করতে পারে। আমি ফায়ারফক্স ব্যবহার করি, তাই এতে ব্যবহার করার নিয়ম দেখালাম। আপনারা অন্য ব্রাউজারেও চেষ্টা করে দেখতে পারেন। এখন ইউনিকোড লিঙ্ক ছোট করার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন।
প্রথমে ফায়ারফক্সের বুকমার্ক টুলবারে রাইট ক্লিক করে New Bookmark এ ক্লিক করুন।

এবার New Bookmark নামে একটি উইন্ডো আসবে। সেখানে Name বক্সে URL Shorter লিখে Location বক্সে নিচের কোড গুলো লিখুনঃ

javascript:(function(){var%20taurl=prompt(‘Enter%20a%20link%20you%20want%20to%20shrink%20via%20shohag_iw@yahoo.com:’,location.href);if(taurl){location.href=’http://tinyarro.ws//api-create.php?suggest=_nounicode&host=ta.gd&url=’+taurl;}})();

তারপর Load this bookmark in the sidebar চেক বক্সটি চেক করে Add বাটনে ক্লিক করুন।

তাহলে আপনার বুকমার্ক টুলবারে URL Shorter নামে একটি নতুন বুকমার্ক বাটন আসবে। এখন কোন সাইট ব্রাউজ করার সময় সে সাইটের লিঙ্ক সর্ট করতে প্রথমে লিঙ্কটি সম্পূর্ন সিলেক্ট করে কীবোর্ড থেকে Ctrl + C চেপে লিঙ্কটি কপি করে URL Shorter বুকমার্ক বাটনটিতে ক্লিক করুন।

তাহলে নিচের মত একটি বক্সটি আসবে। সেখানে আপনার কপি করা লিঙ্কটি Ctrl + V চেপে পেস্ট করে OK বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে ব্রাউজারের বাম পাশে একটি সাইড বারে আপনার লিঙ্কটির সর্ট লিঙ্ক চলে আসবে।

কোন সমস্যা বা জিজ্ঞাসা থাকলে কমেন্ট করবেন।

ফায়ার ফক্সের অ্যাড্রেস বার থেকে টুইট পাঠান

আমাদের দেশে অনেকেই এখন টুইটার ব্যবহার করছেন। টুইটার হল এমন একটি সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইট যেখানে ফেসবুকের মত বিভিন্ন জিনিস শেয়ার করতে পারবেন। কিন্তু এতে মাত্র ১৪০ অক্ষর ব্যবহার করে যে কোন কিছু লিখতে হবে। এর ঠিকানা twitter.com। টুইট পাঠানোর জন্য সাধারণত তাদের সাইটে গিয়ে পাঠাতে হয়। কিন্তু ফায়ারফক্সের একটি সুন্দর অ্যাড-অন আছে যা দিয়ে ফায়ারফক্সের অ্যাড্রেস বার থেকে টুইট পাঠানো যায়। এর নাম টুইটার বার (Twitter Bar)। অ্যাড-অনটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। এটি ডাউনলোড করে ফায়ারফক্স রিস্টার্ট করুন। তারপর নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।
প্রথমে Tools থেকে Add-ons এ ক্লিক করুন। এবার Extensions ট্যাব থেকে TwitterBar এ ক্লিক করে Options বাটনে ক্লিক করুন।

তারপর যে উইন্ডো আসবে সেখান থেকে Add Account বাটনে ক্লিক করুন।

তাহলে একটি ওয়েব পেজ আসবে সেখানে Username or Email: এর জায়গায় আপনার টুইটারের ইউজার নেম বা ইমেইল ঠিকানা দিন এবং Password: এর জায়গায় আপনার টুইটারের পাসওয়ার্ড দিয়ে Allow বাটনে ক্লিক করুন।

কাজ শেষ। এখন আপনি আপনার ফায়ার ফক্সের অ্যাড্রেস বার থেকে টুইট পাঠাতে পারবেন। এর জন্য অ্যাড্রেস বারে আপনার টুইটটি লিখুন এবং পাশে টুইটার চিহ্নতে ক্লিক করুন। এখানে বাংলা ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনি কোন ঠিকানা লিখে টুইটার চিহ্নে ক্লিক করলে এটি স্বয়ংক্রিয় ঠিকানাটিকে ছোট করে তা টুইট হিসেবে পাঠিয়ে দিবে। আপনি একাধিক টুইটার একাউন্টও ব্যবহার করতে পারবেন। তখন উপরের নিয়মে সব একাউন্ট যুক্ত করতে হবে এবং টুইট পাঠানোর সময় টুইটের শেষে @User name অর্থাৎ @ দিয়ে আপনার কোন একাউন্টে টুইট পাঠাতে চান যে একাউন্টের ইউজার নেম লিখুন। আশা করি অ্যাড-অনটি কাজে লাগবে। কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন।