ছবির ভিতর লুকিয়ে রাখুন আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল বা ফোল্ডার

আমরা খুব গুরুত্বপূর্ন ফাইল বা ফোল্ডার গুলো বিভিন্ন ভাবে লুকিয়ে রাখি। বেশীর ভাগ সময় বিভিন্ন সফটওয়্যার ব্যবহার করেই বেশীর ভাগ সময় ফাইল বা ফোল্ডার লুকিয়ে রাখি। তবে আপনি চাইলে ছবির ভিতরও আপনার ফাইল বা ফোল্ডার লুকিয়ে রাখতে পারেন। এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল কেউ ধারনাও করতে পারবে না যে আপনার ফাইল বা ফোল্ডার একটা সাধারন ছবির মধ্যে লুকিয়ে আছে। এবার দেখা যাক কিভাবে ছবিতে ফাইল বা ফোল্ডার লুকানো যায়।
ছবিতে ফাইল বা ফোল্ডার লুকাতে উইনরার (WinRAR) সফটওয়্যারটি লাগবে। আপনার কাছে উইনরার না থাকলে এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। উইনরার দিয়ে কিভাবে ফাইলকে সর্বোচ্চ ছোট করা যায় তার পদ্ধতি এখান থেকে দেখে আসতে পারেন। ছবিতে ফাইল বা ফোল্ডার লুকানোর জন্য একটি কমান্ড (.cmd) ফাইল তৈরি করতে হবে। এই কমান্ড ফাইলে মাত্র এক ক্লিক করেই ছবিতে ফাইল লুকানো যাবে। প্রথমে কমান্ড ফাইলটি তৈরি করা যাক। এর জন্য নোটপ্যাড ওপেন করে নিচের কোড গুলো লিখুন এবং একে Marge.cmd নামে সেভ করুন।

@echo off
copy /b Picture.jpg + Program.rar Result.jpg
echo Complete
pause
end

এবার কিভাবে কমান্ড ফাইলটি ব্যবহার করতে হবে তা দেখা যাক। এখন একটি JPEG (.jpg) ফাইল এবং আপনি যে ফাইল বা ফোল্ডারটি হাইড করতে চান তা একটি খালি ফোল্ডারে রাখুন। এবার উইনরার (WinRAR) সফটওয়্যারটি ইনস্টল করুন। তারপর আপনার ফাইল বা ফোল্ডারটির উপর রাইট ক্লিক করে Add to archive এ ক্লিক করুন। তারপর যে উইন্ডো আসবে সেখান Archive name এ লিখুন Program.rar এবং OK ক্লিক করুন। তাহলে Program.rar নামে একটি রার (RAR) ফাইল তৈরি হবে। এবার আপনি যে ছবিতে (ছবির ফাইলটি অবশ্যই JPEG হতে হবে) ফাইল বা ফোল্ডার লুকাতে চান তার নাম পরিবর্তন করে Picture.jpg করুন। এবার যে ফোল্ডারে Program.rar ও Picture.jpg ফাইল দুটি রেখেছেন সেখানে Marge.cmd ফালটি কপি-পেস্ট করুন। সব করা শেষ হলে Marge.cmd ফাইলটিতে ডাবল ক্লিক করে চালু করুন। কাজ শেষে Complete লেখা দেখালে কিবোর্ডের যে কোন একটি কি প্রেস করুন।
তাহলে দেখবেন আপনার ফোল্ডারটিতে Result.jpg নামে একটি পিকচার ফাইল তৈরি হবে। এতেই আপনার ফাইল বা ফোল্ডারটি লুকিয়ে আছে।
Result.jpg ফাইলটি চালু করলে আপনার ছবিটি দেখতে পাবেন। আর আপনার লুকনো ফাইল গুলো দেখতে Result.jpg এর উপর মাউস পয়েন্টার রেখে রাইট ক্লিক করে Open with থেকে Choose Program এক ক্লিক করে WinRAR archiver সিলেক্ট করে OK তে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার ফাইল বা ফোল্ডার গুলো দেখতে পাবেন। আপনি চাইলে এখন আগের Program.rar ও Picture.jpg ফাইল দুটি মুছে দিতে পারেন।

ভাল লাগলে কমেন্ট করার চেষ্টা করবেন।

Advertisements

নোটপ্যাড দিয়েই টেক্সট টু ভয়েস কনভার্টার তৈরি করুন

আমরা অনেকেই বিভিন্ন প্রয়োজনে টেক্সট টু ভয়েস কনভার্টার জাতীয় সফটওয়্যার ব্যবহার করি। এখন যদি শুধু নোটপ্যাড ব্যবহার করেই টেক্সট টু ভয়েস কনভার্টার তৈরি করা যায় তাহলে কেমন হয়? চলুন তাহলে দেখি কেমন করে নোটপ্যাড দিয়ে টেক্সট টু ভয়েস কনভার্টার তৈরি করে যায়।

প্রথমে নোটপ্যাড চালু করে নিচের কোড গুলো লিখুন এবং একে Text to Voice Converter.vbs নামে সেভ করুন।

Dim msg, sapi

Set sapi=CreateObject(“sapi.spvoice”)

msg=InputBox (“Right anything in this box and click OK.”,”Text to Voice Converter”)

sapi.Speak msg

এবার কোন টেক্সট কনভার্ট করতে হলে তৈরি করা Text to Voice Converter.vbs চালু করুন। এবার বক্সে টেক্সট লিখে OK তে ক্লিক করুন। ভাল লাগলে কমেন্ট করার চেষ্টা করবেন।

এক ক্লিকে সব ড্রাইভ রিফ্রেশ করুন

কম্পিউটার যত রিফ্রেশ করা হয় ততো তা ভাল থাকে। আপনি চাইলে এখন এক ক্লিকে সব ড্রাইভ রিফ্রেশ করতে পারেন। আপনার ফাইল বেশী হলে কম্পিউটারে কাজের শুরুতে বা শেষে একবার করে সব ড্রাইভ রিফ্রেশ করে নিলেই হবে। এক ক্লিকে রিফ্রেশ করতে প্রথমে নোটপ্যাড ওপেন করুন এবং নিচের কোড গুলো লিখুন।

Echo Off
cd/
tree
C:
Tree
D:
Tree
E:
Tree
F:
Tree
G:
Tree
H:
Tree
I:
Tree
J:
Tree
K:
Tree
L:
Tree
M:
Tree
N:
Tree
O:
Tree
P:
Tree
Q:
Tree
R:
Tree
S:
Tree
T:
Tree
U:
Tree
V:
Tree
W:
Tree
X:
Tree
Y:
Tree
Z:
Tree

এবার ফাইলটিকে Refresh all drive.cmd নামে সেভ করুন। আপনি চাইলে আপনার ড্রাইভের কোড গুলো রেখে অন্য কোড মুছে দিতে পারেন। প্রত্যেক ড্রাইভের কোড মুছার সাথে সাথে তার পরের লাইনের Tree লেখাটিও মুছে দিয়েন। কোডে কোন পরিবর্তন না করলেও কোন সমস্যা নেই। তারপরও সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন।

 এ পোষ্টটি দেখুনঃ রিফ্রেশ এবং tree নিয়ে ভুল ধারনা সমূহ

চলুন ফায়ারফক্সকে ফাইল ব্রাউজার বানিয়ে ফেলি

আমরা নেট ব্রাউজিং এর জন্য যেসব ব্রাউজার (যেমন – ফায়ারফক্স, ক্রোম, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ইত্যাদি) ব্যবহার করি তাদের একটি লুকনো প্রতিভা আছে। তা হচ্ছে এরা মাই কম্পিউটারের মত ফাইল ব্রাউজ করতে পারে। তার এই লুকনো প্রতিভাকে আজ আমরা কাজে লাগাব। এর জন্য প্রথমে নোটপ্যাড চালু করে নিচের কোড গুলো লিখুন বা কপি পেস্ট করে দিন।

<html>
<title> ফায়ারফক্স ফাইল ব্রাউজার </title>
<body bgcolor=White text=Black>
<h2 align=center> ফায়ারফক্স ফাইল ব্রাউজার </h2>
<br><br>
<blockquote><a href=”file:///C:/”><font color=Green size=4>C drive</a>
<br><br>
<a href=”file:///D:/”><font color=Green size=4>D drive</a></blockquote>
</body>
</html>

এতে আপনার প্রত্যেকটি ড্রাইভ কোডের দ্বারা দেখিয়ে দিতে হবে। এখানে শুধু C এবং D ড্রাইভ দেখানো হয়েছে। আপনি আপনার অন্য ড্রাইভ দেখানোর জন্য </body> লেখার উপরে নিচের সূত্রের মত করে লিখে ড্রাইভ বাড়াবেন। নিচের সূত্রের শুধু বড় হাতের C লেখা স্থান দুটিতে অন্য ড্রাইভের নাম যেমন E, F দিবেন।

<br><br>

<a href=”file:///C:/”><font color=Green size=4>C drive</a>

সব শেষে একটি কাজ করতে হবে তা হল প্রথম কোডের </blockquote> লেখাটি মুছে সর্বশেষ যে ড্রাইভটির কোড দিবেন তার শেষে </blockquote> লেখাটি লিখে দিবেন। অর্থাৎ কোডে সব শেষে যে খানে </a> লেখাটি আছে তার পর </blockquote> লেখাটি দিবেন। এবার Ctrl + S চাপুন। সেভ ডায়লগ বক্সে কোথায় সেভ করবেন তা দেখিয়ে File name এ Firefox Browser.html লিখুন এবং Encoding বক্স থেকে UTF-8 সিলেক্ট করে Save এ ক্লিক করুন। ব্রাউজারটি চালু করলে এটি দেখতে নিচের মত হবে।

এ ব্রাউজারটি ফায়ারফক্স ছাড়াও অন্য ব্রাউজারে চলবে। তবে ফায়ারফক্সে চালালে আসল মজা পাবেন।
সুবিধাঃ
এটির বড় সুবিধা হল এটি দিয়ে আপনি নিজেই ভাইরাস সনাক্ত করতে পারবেন। ভাইরাস বেশীর ভাগ সময় ফাইলের আইকন ধারন করে থাকে। তাই এটি দিয়ে ব্রাউজ করলে আপনি ফাইল ভেবে ভুলে ভাইরাসে ক্লিক করলে তা চালু না হলে ডাউনলোড বক্স আসবে। আর ফাইল ক্লিক করে যদি ডাউনলোড বক্স আসে তাহলে সেটি ফাইল নয় ১০০% নিশ্চিত সেটি ভাইরাস। অর্থাৎ এটি দিয়ে আপনি ভাইরাস থেকে নিরাপদে থাকতে পারবেন। এটি অতিরিক্ত হিসেবে টেক্সট ফাইল ওপেন করতে পারে।
ব্রাউজারটি বানাতে কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন।

কম্পিউটারের এন্টি-ভাইরাসটি কার্যকর আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখুন

কম্পিউটারে এন্টিভাইরাস থাকলেই হয় না তা কার্যকর রাখতে হয়। আর এন্টিভাইরাস কার্যকর কিনা তা পরীক্ষা করা জন্য একটি পদ্ধতি আছে। এর জন্য প্রথমে নোটপ্যাড ওপেন করুন এবং নিচের কোড গুলো লিখুন এবং একে virus.bat নামে সেভ করুন।

X5O!P%@AP[4\PZX54(P^)7CC)7}$EICAR-STANDARD-ANTIVIRUS-TEST-FILE!$H+H*

ভাইরাস সফটওয়্যার থাকলে অবশ্যই ফাইলটি ধরবে। যদি ভাইরাস সফটওয়্যার থাকার পরও না ধরে তা হলে ভাইরাস সফটওয়্যারটি ঠিক নেই বা কার্যকর নেই। শুধু এন্টিভাইরাস টেস্ট করার জন্য কোডটি তৈরি করা হয়েছে। এটি কোন ক্ষতি করবে না। এটি চালু করলে EICAR-STANDARD-ANTIVIRUS-TEST-FILE! এ লেখাটি দেখাবে এবং বন্ধ হয়ে যাবে।

তথ্যসূত্রঃ এখানে

শুধু রাইট ক্লিক করেই ফাইল বা ফোল্ডারকে মুভ বা কপি করুন অন্য ফোল্ডারে

কোন ফাইল বা ফোল্ডার কপি বা মুভ করতে এক ফোল্ডার থেকে আরেক ফোল্ডারে দৌড়াতে হয়। নিচের পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনি রাইট ক্লিক করে Copy To বা Move To ক্লিক করে নিচের মত উইন্ডো ব্যবহার করে ফাইল, ফোল্ডারকে মুভ বা কপি কারতে পারবেন।

কপি বা মুভ উইন্ডো

কার্যপদ্ধতিঃ প্রথমে নোটপ্যাড ওপেন করুন এবং নিচের কোড গুলো লিখুন এবং একে Copy and Move Menu.reg নামে সেভ করুন।

Windows Registry Editor Version 5.00

[HKEY_LOCAL_MACHINE\SOFTWARE\Classes\AllFilesystemObjects\shellex\ContextMenuHandlers\Copy To]
@=”{C2FBB630-2971-11D1-A18C-00C04FD75D13}”

[HKEY_LOCAL_MACHINE\SOFTWARE\Classes\AllFilesystemObjects\shellex\ContextMenuHandlers\Move To]
@=”{C2FBB631-2971-11D1-A18C-00C04FD75D13}”

তারপর Copy and Move Menu.reg ফাইলটি চালু করে OK দিন। এখন কোন ফাইল বা ফোল্ডার কপি বা মুভ করতে তার উপর মাইস পয়েন্টার রেখে মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করে মুভ করতে To Move এবং কপি করতে হলে To Copy তে ক্লিক করুন এবং ফোল্ডার দেখিয়ে দিন। সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন।

নোটপ্যাডের সাহায্য অনলাইন রেডিও গুনগুন শুনুন

বর্তমানে অনেক অনলাইন রেডিও আছে। অনলাইন রেডিও গুন গুন শুনতে নোটপ্যাড ওপেন করে নিচের কোড গুলো কপি করে দিন।


NumberOfEntries=1
File1=http://69.39.233.135:8888/

এবার একে “Radio goongoon.pls” নামে সেভ করুন। এ প্লেলিস্ট ফাইলটি আপনি উইন্যাম্প, ভিএলসি, রিয়েল, জেট অডিও ইত্যাদি প্লেয়ারে শুনতে পারবেন। এটি শুনার জন্য প্রায় 4 KB/s নেট স্পিড লাগবে।