ওয়ার্ডপ্রেস.কম (WordPress.com) – টিউটোরিয়াল – ৫ – প্রোফাইল পরিবর্তন এবং এক্সট্রাস (Extras), হেডার (Header) ও থিম অপশনস (Theme Options) নিয়ে আলোচনা

আজকের টিউটোরিয়ালের আলোচ্য বিষয় নিজের প্রোফাইল পরিবর্তন করা এবং থিমের যে সব অপশন আছে সেগুলো নিয়ে একটু ঘাটাঘাটি করা। প্রথমে দেখা যাক প্রোফাইল কেমন করে পরিবর্তন করা যায়। প্রোফাইল পরির্তন করার জন্য প্রথমে আপনার ব্লগের ড্যাসবোর্ডে যেতে হবে। ড্যাসবোর্ডে যাওয়ার জন্য অ্যাড্রেসবারে আপনার ব্লগের নামের শেষে “/wp-admin/” যোগ করে এন্টার দিন যেমনঃ https://iwwintricks.wordpress.com/wp-admin/ । টিউটোরিয়ালের প্রত্যেক পোষ্টেই ড্যাসবোর্ডে যাওয়ার নিয়মটা দেখিয়ে দেই, যাতে ড্যাসবোর্ডে যাওয়ার নিয়মটা মুখস্থ হয়ে যায়। ড্যাসবোর্ড এলে এখানে বাম পাশের অপশন গুলো থেকে Users বিভাগ থেকে My Profile এ ক্লিক করুন।

তাহলে যে পেজ আসবে সেখানে থেকে আপনার প্রোফাইল প্রয়োজন মত আপডেট করে পেজের শেষের দিকে Update Profile বাটনে ক্লিক করুন।
তাহলে আপনার প্রোফাইল সেভ হয়ে যাবে। আপনি এখান থেকে প্রোফাইল পরিবর্তন না করে গ্র্যাভ্যাটর (Gravatar) থেকেও আপনার প্রোফাইল আপডেট করতে পারবেন। গ্র্যাভ্যাটর থেকে প্রোফাইল আপডেট করার সম্পূর্ন নিয়ম এখান থেকে দেখে আসতে পারেন।

এবার পরবর্তি আলোচনায় আসা যাক। নিচে এক্সট্রাস (Extras), হেডার (Header) ও থিম অপশনস (Theme Options) নিয়ে আলোচনা করা হল।

এক্সট্রাস (Extras)
এক্সট্রাস এ যাওয়ার জন্য ড্যাসবোর্ডের বামের অপশন গুলোর Appearance বিভাগ থেকে Extras এ ক্লিক করুন।

Extras পেজে দুটি অপশন দেখতে পাবেন সেগুলো হলঃ
1. Display a mobile theme when this blog is viewed with a mobile browser
2. Hide related links on this blog, which means this blog won’t show up on other blogs or get traffic that way
1 নং অপশনটা সিলেক্ট করলে আপনার ব্লগ কেউ মোবাইল থেকে ব্রাউজ করলে আপনার ব্লগটি মোবাইলে সয়ংক্রিয় একটি মোবাইল থিমে দেখানো হবে। এটা চালু রাখা উচিত।
2 নং অপশনটা সিলেক্ট না করা উচিত। কারন আপনার ব্লগের কোন পোষ্টের লিঙ্ক যদি অন্য কোন সাইটে দেয়া হয় এবং সেখান থেকে কোন ভিজিটর যদি সেই লিঙ্কে ক্লিক করে আপনার ব্লগে আসে তাহলে ঐ লিঙ্কটি আপনার ঐ পোষ্টের নিচে দেখা যাবে। এতে যে আপনার ব্লগের লিঙ্ক তার সাইটে দিয়ে আপনার ট্রাফিক বাড়িয়েছে তার লিঙ্কটিও আপনার সাইটে সয়ংক্রিয় যোগ হবে। 2 নং অপশনটা সিলেক্ট করলে এই লিঙ্ক গুলো আর পোষ্টের নিচে দেখাবে না। ট্রাফিক বাড়ানোর জন্য এটা চালু রাখা উচিত।

হেডার (Header)
হেডার বলতে ওয়েব সাইটের উপরের অংশে যেখানে ব্লগের নাম দেখা যায় সে যায়গাটিকে বা অংশটিকে বঝানো হয়। হেডার পেজে যাওয়ার জন্য ড্যাসবোর্ডের বামের অপশন গুলোর Appearance বিভাগ থেকে Header এ ক্লিক করুন।

হেডার পেজে হেডারে পিকচার যোগ করা, হেডারে ব্লগের যে নামটি দেখায় তার রং পরিবর্তন এবং নামটি হাইড করার অপশন পাবেন।
হেডারে পিকচার যোগ করতে Upload Image অংশ থেকে Browse এ ক্লিক করে আপনার কম্পিউটার থেকে একটি ইমেজ সিলেক্ট করে Upload বাটনে ক্লিক করুন। পিকচারের সাইজ কত পিক্সেল হবে তা Browse বাটনের উপরের লেখা গুলোর মধ্যে গাড় করে লেখা থাকে। যেমন নিচের পিকচারে দেয়া আছে 980 x 148 pixels. একেক থিমে একেক ধরনের পিকচার সাইজ দেয়া থাকে।
হেডারের পিকচারটি মুছে ফেলার জন্য Remove Header Image বাটনে ক্লিক করতে পারেন। শুরুতে আপনার থিমে যে ইমেজ দেয়া ছিল তা ফিরিয়ে আনতে Restore Original Header Image বাটনে ক্লিক করতে হবে।

হেডারে ব্লগের নামটির রং পরিবর্তন করতে Text Color এর পাশের Select a Color বাটনে ক্লিক করে রং সিলেক্ট করে দিতে পারেন। আর হেডারে ব্লগের নামটি হাইড করে রাখতে চাইলে Display Text এর পাশে থেকে No রেডিও বাটন সিলেক্ট করে দিন। আর হেডারের নামটি দেখাতে চাইল Yes রেডিও বাটনটি সিলেক্ট করে দিন। সব সেটিং করা হলে Save Changes বাটনে ক্লিক করুন।

থিম অপশনস (Theme Options)
থিম অপশন পেজে যাওয়ার জন্য ড্যাসবোর্ডের বামের অপশন গুলোর Appearance বিভাগ থেকে Theme Options এ ক্লিক করুন।

থিম অপশনস পেজ এলে তাতে তিনটি অপশন দেখতে পাবেন।
১. Default Layout থেকে আপনার ব্লগটির উপাদান গুলো কিভাবে থাকবে তা সিলেক্ট করে দিতে পারবেন।
২. Layout Width থেকে Fixed সিলেক্ট করলে আপনার পেজটি লোড করলে সব ভিজিটরের মনিটরে নির্দিষ্ট মাপে লোড হবে। আর flexible সিলেক্ট করলে আপনার পেজটি মনিটরের সাইজ অনুজায়ী পেজের Width অর্থাৎ পেজের প্রস্থ পরিবর্তন হয়ে ব্রাউজারের সম্পূর্ন প্রস্থ জুড়ে হবে। এখানে Fixed সিলেক্ট রাখা উচিত।
৩. Display Full Post Or Excerpt থেকে Full Post সিলেক্ট করলে আপনার ব্লগের হোম পেজে আপনার পোষ্ট গুলো সম্পূর্ন দেখাবে। আর Excerpt সিলেক্ট করলে আপনার ব্লগের হোম পেজে আপনার পোষ্ট গুলোর শুরুর একটু করে অংশ দেখাবে এবং সম্পূর্ন পোষ্ট পড়তে ভিজিটরকে ঐ পোষ্টটির টাইটেলে ক্লিক করে ঐ পোষ্টের পেজে গিয়ে সম্পূর্ন পোষ্ট পড়তে হবে। এখনে Excerpt সিলেক্ট করা ভাল।

সব কাজ শেষ হলে Save Options বাটনে ক্লিক করতে ভুলবেন না।
আজ এ পর্যন্তই। সামনে ওয়ার্ডপ্রেস.কম এর বাকী অপশন গুলো নিয়ে আবার হাজির হব। আজকের মত বিদায়। কোন সমস্যা হলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন।
ধন্যবাদ।

ওয়ার্ডপ্রেস.কম টিউটোরিয়ালটি মোট ৯টি পোষ্ট এর সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। আপনাদের সুবিধার্থে টিউটোরিয়ালের সব পেজের লিঙ্ক নিচে দেয়া হলঃ

ওয়ার্ডপ্রেস.কম (WordPress.com) – টিউটোরিয়াল – ৪ – থিম পরিবর্তন করা এবং উইজেট (Widget) যোগ করা

ওয়ার্ডপ্রেস.কম এর আজকের টিউটোরিয়ালে দেখাবো কিভাবে থিম পরিবর্তন করতে হয় এবং সাইটে উইজেট যোগ করা যায়। ওয়ার্ডপ্রেস.কম এর একটি সীমাবদ্ধতা হল এতে বাইরে থেকে থিম যোগ করা যায় না। তবে এতে ১০০+ দারুন কিছু থিম আছে। যেগুলো থেকে আপনি পছন্দ মত থিম সিলেক্ট করে দিতে পারেন। থিম সিলেক্ট করার জন্য প্রথমে আপনার ব্লগের ড্যাসবোর্ডে যেতে হবে। ড্যাসবোর্ডে যাওয়ার জন্য অ্যাড্রেসবারে আপনার ব্লগের নামের শেষে “/wp-admin/” যোগ করে এন্টার দিন যেমনঃ https://iwwintricks.wordpress.com/wp-admin/
এবার বামে নিচের দিকে থেকে Appearance এর পাশে তীর চিহ্ন (^) টিতে ক্লিক করুন। এবার এর সাব মেনু থেকে Themes এ ক্লিক করুন।

এবার যে পেজটি আসবে সেখানে র‍্যানডম ভাবে সিলেক্ট করা ১৫ টি থিম দেখাবে। এগুলোর থেকে পছন্দ না হলে Refresh বাটনে ক্লিক করুন। প্রত্যেক থিমের পিকচারের নিচে Activate এবং Preview নামে দুটি অপশন থাকে।

Activate এ ক্লিক করলে ঐ থীমটি অ্যাকটিভ হবে এবং Preview এ ক্লিক করলে ঐ থীমটিতে আপনার ব্লগ দেখতে কেমন লাগবে তা দেখা যাবে।

থীম সিলেক্টের কাজ মোটামুটি এতটুকুই। এবার দেখা যাক উইজেট যোগ করার নিয়ম।
উইজেট পেজে যাওয়ার জন্য Appearance ভাগ থেকে Widgets এ ক্লিক করুন।

তাহলে যে পেজটি আসবে সেখানে নিচের মত পাচটি ভাগ দেখতে পাবেন। প্রত্যেক ভাগে কাজ করার জন্য তার পাশের তীর চিহ্নতে ক্লিক করতে হবে।

এখান Available Widgets ভাগে মোট উইজেট গুলো দেখতে পাবেন। অনেক থীমে উইজেটের জন্য ডানে বা বামে দুটি ভাগ থাকে, প্রথমটিকে Primary Widget Area এবং অপরটিকে Secondary Widget Area বলা হয়। আর শুধু একটি ভাগ থাকলে তা হবে Primary Widget Area এবং পেজের নিচের উইজেট বারকে Footer Widget Area বলে। আপনার যে উইজেট লাগবে সেটি Available Widgets থেকে ড্র্যাগ করে আপনার ইচ্ছে মত অংশে (যেমন Primary Widget Area অংশে) ড্রপ করুন।

Available Widgets এ যে সব উইজেট থাকে সেগুলোর নাম এবং প্রয়োজনীয় উইজেট গুলোর একটু করে বর্ননা দেয়া হলঃ

Blog Subscriptions – আপনার ব্লগের ইমেইল সাবক্রাইব করার অপশন এতে দেয়া থাকে।
Blog Stats – আপনার ব্লগটি কতবার ভিজিট হয়েছে তা দেখার জন্য এটি ব্যবহার করতে পারেন। একে Hit Counter হিসেবে ব্যবহার করা হয়।
Box.net file sharing
Calender – ব্লগে ক্যলেন্ডার দেখানোর জন্য।
Categories – ব্লগের ক্যাটাগরি দেখানোর জন্য।
Category Cloud – আপনার ব্লগের ক্যাটাগরি গুলো Cloud অর্থাৎ মেঘের মত দেখতে পাবেন।
Custom Menu
del.icio.us
Flickr
Gravatar – আপনার Gravatar এর অ্যাভাটার পিকচার দেখা যাবে। এতে মাউস পয়েন্টার রাখলে আপনার Gravatar প্রোফাইল দেখা যাবে।
Image – এর মাধ্যমে আপনি ব্লগে নির্দিষ্ট কোন পিকচার দেখাতে পারবেন এবং লিঙ্কও যোগ করতে পারবেন।
Links
Meta
Pages – আপনার সব পেজ দেখাবে।
Recent Comments – আপনার ব্লগে সর্বশেষ কমেন্ট গুলো দেখাবে।
Recent Posts – আপনার ব্লগে সর্বশেষ পোষ্ট গুলো দেখাবে।
RSS
RSS Links
Search – আপনার ব্লগে সার্চ করার অপশন দেয়ার জন্য এটি ব্যবহার করতে পারেন।
Text – কোন লেখা দেখানোর জন্য এটি ব্যবহার করা হয়।
Top Clicks – সব চেয়ে বেশী যে সব লিঙ্কে ক্লিক করা হয়েছে তার লিস্ট দেখাবে।
Top Posts & Pages – টপ পোষ্ট এবং পেজ গুলো দেখাবে।
Top Rated
Twitter – আপনার টুইটারের টুইট গুলো দেখাবে।
Vodpod Videos

নিচে কয়েকটি উইজেটের সেটিং এর নমুনা দেয়া হলঃ





আশা করি নমুনা গুলো দেখে উইজেটের সেটিং সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা হয়েছে। তারপরও কোন সমস্যা হলে দয়া করে কমেন্ট করবেন।
ধন্যবাদ।

ওয়ার্ডপ্রেস.কম টিউটোরিয়ালটি মোট ৯টি পোষ্ট এর সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। আপনাদের সুবিধার্থে টিউটোরিয়ালের সব পেজের লিঙ্ক নিচে দেয়া হলঃ