জনপ্রিয় DU Meter এর বিকল্প এবং সম্পূর্ন ফ্রি সফট Net Speed Monitor

বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

সবাই কেমন আছেন? আশা করছি ভাল। ইন্টারনেট স্পিড মনিটর করার জন্য আমরা যে সফটওয়্যার ব্যবহার করি সে গুলোকে ব্যান্ডউইথ মনিটর (Bandwidth Monitor) সফটওয়্যার বলে। ব্যান্ডউইথ মনিটর সফটওয়্যার গুলোর ভিতরে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে DU Meter. কিন্তু এটি ফ্রি নয়। তাই এটির পাইরেটেড ভার্সন আমাদের ব্যাবহার করতে হয়। যদিও তারা তাদের সফট বাংলাদেশে কেনার সুযোগ দিয়েছে।

কিন্তু এর বিকল্প এবং ফ্রি যদি কোন সফট পাওয়া যায় তাহলে টাকা খরচ করে বা পাইরেটেড জিনিস ব্যবহার করবেন কেন?

হ্যাঁ এর বিকল্প এবং ফ্রি সফটওয়্যার হল Net Speed Monitor. DU Meter এর প্রায় সব সুবিধাই এতে পাবেন। এর ব্যবহারও খুবই সোজা। আজ এই ফ্রি সফটওয়্যারটিই আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

Net Speed Monitor এর ডাউনলোড লিঙ্কঃ

Net Speed Monitor ডাউনলোড

Net Speed Monitor ডাউনলোড

সাপোর্টেড অপারেটিং সিস্টেমঃ

এটি Windows Xp, Vista, 7, 8 ইত্যাদি সব উইন্ডোজই সাপোর্ট করে।

বিঃ দ্রঃ উইন্ডোজ ৮ এ এটি সেটআপে সমস্যা করলে সেটআপ ফাইলে রাইট ক্লিক করে Propertise এ ক্লিক করুন; তারপর Compatibility ট্যাবে গিয়ে Compatibility mode থেকে Run this program in compativility mode for: এ টিক দিয়ে Previous version of Windows সিলেক্ট করে OK ক্লিক করে বের হয়ে আসুন এবং তারপর সেটআপ করুন। তাহলেই আর কোন সমস্যা হবে না।

স্ক্রিনসটঃ

Net Speed Monitor এর টাস্কবার রূপ

উপরের মত Net Speed Monitor এর টাস্কবার স্ক্রিন চালু করতে Net Speed Monitor ইনস্টল করে টাস্কবারে রাইট ক্লিক করে Toolbars > NetSpeedMonitor এ ক্লিক করুন। তাহলেই Net Speed Monitor এর টাস্কবার স্ক্রিনটি টাস্কবারে দেখতে পাবেন।

Net Speed Monitor কাস্টমাইজ/সেটিং করতে টাস্কবার থেকে Net Speed Monitor এর স্ক্রিনের উপর রাইট ক্লিক করে Configuration এ ক্লিক করুন। তাহলে Configuration উইন্ডো চালু হবে। যেখান থেকে আপনি Net Speed Monitor কাস্টমাইজ করতে পারবেন।

আমি উপরে Net Speed Monitor এর টাস্কবার স্ক্রিনের যে স্ক্রিনসটটি দিয়েছি আপনি শুরুতে সেরকম দেখবেন না। কারন কিছু সেটিং পরিবর্তন করার পর স্ক্রিনসটটি নেয়া। আমার পছন্দের সেই সেটিং গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। আশা করি এগুলো কাজে লাগবে।

Net Speed Monitor কাস্টমাইজ করতে প্রথমে Configuration চালু করুন। তারপর General ট্যাব থেকে Bitrate থেকে kB/s দেখিয়ে দিন।

এবার Layout ট্যাব থেকে Font গ্রুপ থেকে antialiased থেকে ClearType দেখিয়ে দিন, Change Lineorder এ টিক চিহ্ন দিন এবং Value Width থেকে 4 সিলেক্ট করে দিন।

আপনি Net Speed Monitor এর টাস্কবার স্ক্রিনে মাউস পয়েন্টার রাখলে নিচের মত টুলটিপস্ দেখতে পাবেন।

এটি বন্ধ করতে চাইলে Tooltips ট্যাবে গিয়ে Enable Toolbar Tooltip থেকে টিক চিহ্ন উঠিয়ে দিন। কাজ শেষ; এবার Apply এবং OK দিয়ে বের হয়ে আসুন।

আশা করি সফটওয়্যারটি আপনাদের কাজে লাগবে।

পোষ্টটি ভাল লাগলে কমেন্ট ও শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন!

আজ এ পর্যন্তই। আল্লাহ হাফেজ।

যাদের ইন্টারনেট স্পিড কম তাদের জন্য পেজ দ্রুত লোড করার একটি টিপস এবং ফেসবুক সম্পর্কিত একটি টিপস

যাদের ইন্টারনেট স্পিড কম তাদের কোন সাইটে ঢোকার সময় হা করে বসে থাকতে হয়। আমার মত যাদের নেট স্পিড ৩ কেবি/সেকেন্ড পার হয় না তাদের জন্য ফায়ারফক্সের একটা টিপস দিচ্ছি। আপনি ফায়ারফক্সের ক্যাশ বাড়াতে পারেন এতে ওয়েব সাইট দ্রুত লোড হবে। কারন ক্যাশে কোন ওয়েব সাইটে যে সব জিনিস বার বার লোড করতে হয় সেগুলো সংরক্ষন করে। এতে ঐ ওয়েব সাইট চালু করলে ইন্টারনেট থেকে শুধু যে গুলো পরিবর্তন হয় বেশীর ভাগ সময় শুধু লেখাই পরিবর্তন হয় সেগুলো লোড করে। এতে নেটের উপর চাপ কমে এবং আপনার কাছে মনে হবে ওয়েব সাইট দ্রুত লোড হয়েছে। ক্যাশ বাড়ানোর জন্য ফায়ারফক্সের Tools থেকে Options এ ক্লিক করুন। তারপর Advanced ট্যাব থেকে Network ট্যাবে ক্লিক করুন। এবার Use up to বক্সে 256 বা আপনি যত মেগাবাইট ক্যাশের সাইজ দিতে চান দিয়ে OK তে ক্লিক করুন। ক্যাশ যত বড় হবে তত বেশী ওয়েব সাইট আপনার ক্যাশে জমা হতে পারবে।

ফেসবুকের জন্য এবার একটি টিপস দেই। যারা ফেসবুকে চ্যাট করেন না, শুধু নিউজ ফিড দেখেন তারা ফেসবুক m.facebook.com ঠিকানা দিয়ে ফেসবুকে ঢুকতে পারেন। এতে আপনার নেট স্পিড কম হলেও দেখবেন কত দ্রুত চালু হবে। m.facebook.com হল ফেসবুকের মোবাইল ভার্সন। আর আপনি চ্যাট করার জন্য ডিগসবাই (Digsby) ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনি কম নেট ইউজ করে শান্তি মত চ্যাট করতে পারবেন। কারন ডিগসবাই খুব কম নেট ইউজ করে। আজ এ পর্যন্ত। ভাল লাগলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

কম্পিউটার, নেট ও গেমের স্পিড বাড়ান গেম বুস্টার (Game Booster) দিয়ে

আমরা যখন কম্পিউটার চালু করি তখন প্রয়োজনীয়-অপ্রয়োজনীয় অনেক প্রোগ্রাম চালু হয়। অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম গুলো চালু থেকে অযথা প্রসেসরের স্পিড ও র‍্যামের প্রয়োজনীয় যায়গা দখল করে রাখে। এসব অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম বন্ধ করার জন্য গেম বুস্টার সফটওয়্যারটি ব্যবহার করতে পারেন।

এটি অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম ও প্রসেস বন্ধ করে কম্পিউটারের গতি বাড়ায়ে দেয়। এতে নেটের স্পিড ও একটু বেশী পাবেন। কারন উইন্ডোজের যেসব সার্ভিস অকারনে নেট ইউজ করে যেমন অটোমেটিক আপডেট, টাইম আপডেট ইত্যাদি সার্ভিস গুলোকে গেম বুস্টার বন্ধ করে দেয়। সফটওয়্যারটি অপ্রয়োজনীয় প্রোসেস বন্ধ করে দেয় এতে আপনি গেম খেলার সময়ও পিসির সর্ব্বোচ্চ গতি পাবেন। এ সফটওয়্যারটি একদম ফ্রি। এর সাইজ প্রায় ৫ মেগাবাইট। এটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন। এটি ডাউনলোড করে ইনস্টল করে চালু করে Switch to Gaming Mode! বাটনে ক্লিক করলেই এটি অপ্রয়োজনীয় প্রোসেস বন্ধ করে এবং সয়ংক্রিয় হাইড হয়ে নোটিফিকেশন এরিয়াতে চলে যাবে। আশা করি সফটওয়্যারটি উপকারে আসবে। ভাল লাগলে কমেন্ট করবেন।

ইন্টারনেটের স্পিড বাড়ান – ০১

আমাদের দেশে এমনিতেই নেটে স্পিড কম। তারপর কিছু কারনে আমরা সম্পূর্ন স্পিড ব্যবহার করতে পারি না। তার মধ্যে আজকে একটির কথা বলব।
সাধারনত উইন্ডোজ মোট ব্যান্ডউইথের ২০% নিজের কাজের জন্য যেমনঃ উইন্ডোজ আপডেট ইত্যাদির জন্য বরাদ্দ করে রাখে। আপনি চাইলে তা কমিয়ে ০% করতে পারেন। এর জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরন করুন।
প্রথমে Start মেনু থেকে Run এ ক্লিক করুন। এরপর gpedit.msc লিখে এন্টার দিন। তাহলে Group policy editor চালু হবে। এরপর সেখান থেকে Local Computer Policy > Computer Configuration > Administrative Templates > Network থেকে QoS Packet Scheduler এ ক্লিক করুন। তারপর বাম পাশ থেকে Limit reservable bandwidth এ ডাবল ক্লিক করুন।

তাহলে Limit reservable bandwidth Properties নামে একটি উইন্ডো আসবে। এখান থেকে Enabled রেডিও বাটনে ক্লিক করুন এবং Bandwidth limit(%) বক্সে 20 এর বদলে 0 বসিয়ে Apply এ ক্লিক করে OK ক্লিক করে বের হয়ে আসুন।

কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করবেন।

ব্যান্ডউইথ এবং নেট স্পিড মনিটর করার জন্য Bandwidth Monitor

আমরা যারা লিমিটেড অর্থাৎ ২০০ মে.বা. বা ১ গিগা ব্যান্ডউইথ প্যাকেজ ব্যবহার করি তাদের হিসাব করে নেট ব্যবহার করতে হয়। এছাড়া মাঝে মাঝে নেটে কত স্পিড পাওয়া যাচ্ছে তা দেখার প্রয়োজন হয়। এসব কাজের জন্য দারুন একটি সফটওয়্যার হচ্ছে Bandwidth Monitor. এ সফটওয়্যারটি দিয়ে আপনি আপলোড এবং ডাউনলোড স্পিড সব সময় মনিটর করতে পারবেন। এটি দিয়ে মোট কতটুকু নেট ব্যবহার করেছেন তাও জানতে পারবেন। এটিকে আপনি আপনার ব্রাউজারের টাইটেল বারে রেখে দিতে পারবেন। নিচে সফটওয়্যারটির একটি ছবি দেয়া হল।

এর থিম পরিবর্তন করার সুবিধা আছে। এতে নিজের ইচ্ছে মত থিম তৈরিও করা যায়। উপরের থিমটি আমার তৈরি। এর ডিফল্ট থিম গুলোর আকার বড় তাই উপরের থিমটি তৈরি করতে হয়েছে। সফটওয়্যারটি এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।
ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াঃ প্রথমে Bandwidth Monitor ইনস্টল করুন। এবার নেট চালু থাকা অবস্থায় Bandwidth Monitor চালু করুন। এবার যে ছোট উইন্ডোটি আসবে তাতে রাইট ক্লিক করুন এবং Settings ক্লিক করুন। এবার নিচের মত একটি পর্দা আসবে।

চিত্রে গোল বৃত্ত দেয়া চেকবক্স গুলো রাইট দিন এবং অন্য চেকবক্স গুলো থেকে রাইট তুলে দিন। এবার নেটে যে কোন কিছু যেমন কোন সাইট ওপেন করতে দিয়ে Auto-Detect বাটনটি ক্লিক করুন। এবার OK দিয়ে বের হয়ে আসুন। চিত্রের থিমটি আনতে চাইলে ডাউনলোড করা ফাইলের Theme ফোল্ডারে গিয়ে Mini by Shohag.rtp এ ডাবল ক্লিক করুন এবং দুইবার Yes ক্লিক করুন। প্রতিদিন আপনার নেট ব্যবহারের পরিমান দেখতে এর উইন্ডোতে রাইট ক্লিক করে Logs ক্লিক করুন। থিম তৈরি করতে এর উইন্ডোতে রাইট ক্লিক করে Themes থেকে Create ক্লিক করুন। থিম পরিবর্তন এবং সফটওয়্যারটি চালুর আগে অবশ্যই নেট চালু রাখবেন তা না হলে বারবার আপনাকে Auto-Detect কাজটি করতে হবে।

আরো দেখতে পারেনঃ