লিংক

তথ্য বিজ্ঞানীদের খুঁজছে সারা পৃথিবী! আপনি প্রস্তুত তো?

টেকমাস্টার ব্লগে আমার প্রকাশনাঃ

তথ্য বিজ্ঞানী কারা? বিগ-ডেটা কি? ডেটা মাইনিং কি? বিগ-ডেটার ভবিষ্যৎ? বাংলাদেশ প্রেক্ষিতে এর ব্যবহার? এগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এ প্রকাশনায়।

http://techmasterblog.com/25785/sience-tech

ডেস্কটপ রিফ্রেশ কেন করবেন? এটি কি আসলেই কোনো উপকার করে?

উইন্ডোজ ডেস্কটপে মাউস দিয়ে রাইট ক্লিক করলে Refresh নামে একটি অপশন পাওয়া যায়।

Desktop Refresh

এটির কাজ কি? এটি করলে কি উইন্ডোজের কাজের গতি বাড়ে? উইন্ডোজ স্মুথ ভাবে চলে?

না, এগুলোর কিছুই হয়না এটি দিয়ে।

বিস্তারিত পড়ুন

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এ hello world! ঐতিহ্য এবং আরো কিছু

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এখন সবার জন্য একটা “জানতেই হবে” বিষয়ে পরিনত হয়েছে। সরকার কম্পিউটার শিক্ষা সবার জন্য বাধ্যতামূলক করেছে। ১১-১২ শ্রেণি থেকেই কোডিং শিখতে হয় এখন!

যাই হোক, কোড নিয়ে লিখালিখি শুরু করব করব ভাবছি কিন্তু এখনো শুরু করতে পারিনি। এইটাই মনে হয় প্রোগ্রামিং নিয়া প্রথম পোষ্ট আমার।

এবার পোষ্টের বিষয়ে আসি। কম্পিউটার প্রোগ্রামিং শেখার শুরুতে বেসিক বিষয় গুলোর জন্য সহজ কোনো প্রোগ্রাম তৈরি করা হয়। “hello world!” হচ্ছে এরকমই একটি প্রোগ্রাম। মূলত “hello world!” লিখাটাকে কোনো ভাবে দেখানোই হচ্ছে “hello world!” প্রোগ্রাম!

বিস্তারিত পড়ুন

প্রধান শিক্ষককে আব্রাহাম লিংকনের চিঠি – একটি ঐতিহাসিক চিঠি

আজকে আব্রাহাম লিংকনের একটি ঐতিহাসিক চিঠি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। আমার কাছে চিঠিটি অনেক ভাল লেগেছে। আপনারও ভাল লাগবে আশা করি।

আব্রাহাম লিংকন সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ

আব্রাহাম লিংকন (জন্ম ফেব্রুয়ারি ১২, ১৮০৯ – মৃত্যু এপ্রিল ১৫, ১৮৬৫) মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১৬তম রাষ্ট্রপতি। তিনি রিপাবলিকান পার্টির প্রথম রাষ্ট্রপতি, এবং ১৮৬১ হতে ১৮৬৫ খ্রীস্টাব্দ পর্যন্ত ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত ছিলেন। দাস প্রথার চরম বিরোধী লিংকন ১৮৬০ সালে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী হিসাবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। ১৮৬৩ সালে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দাস প্রথার অবসান ঘটান এবং মুক্তি ঘোষণা (Emancipation Proclamation) এর মাধ্যমে দাসদের মুক্ত করে দেন। দাস প্রথাকে কেন্দ্র করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গৃহযুদ্ধের সময় তিনি উত্তরাঞ্চলীয় ইউনিয়ন বাহিনীর নেতৃত্ব দেন, এবং দক্ষিণের কনফেডারেট জোটকে পরাজিত করেন। জন উইল্‌ক্‌স বুথ নামক আততায়ীর হাতে তিনি ১৮৬৫ খ্রীস্টাব্দের ১৫ এপ্রিল গুলিবিদ্ধ ও নিহত হন।

আধুনিক বিশ্লেষকেরা লিংকনকে মার্কিন রাষ্ট্রপতিদের মধ্যে সবার উপরে স্থান দিয়ে থাকেন। মার্কিন রাজনীতিতে তাঁর চিরস্থায়ী প্রভাব রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকান মতবাদের পুনরুত্থানে তাঁর ভূমিকা অপরিসীম। (তথ্যঃ বাংলা উইকিপিডিয়া)

নিচে প্রধান শিক্ষককে আব্রাহাম লিংকনের পাঠানো ঐতিহাসিক চিঠিটির ইংরেজী এবং বাংলা অনুবাদ দেয়া হলঃ

বাংলা ভার্সনঃ

মাননীয় মহাশয়,
আমার পুত্রকে জ্ঞানার্জনের জন্য আপনার কাছে প্রেরণ করলাম। তাকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলবেন- এটাই আপনার কাছে আমার বিশেষ দাবি।
আমার পুত্রকে অবশ্যই শেখাবেন – সব মানুষই ন্যায়পরায়ণ নয়, সব মানুষই সত্যনিষ্ঠ নয়। তাকে এও শেখাবেন প্রত্যেক বদমায়েশের মাঝেও একজন বীর থাকতে পারে, প্রত্যেক স্বার্থবান রাজনীতিকের মাঝেও একজন নিঃস্বার্থ নেতা থাকে। তাকে শেখাবেন পাঁচটি ডলার কুড়িয়ে পাওয়ার চেয়ে একটি উপার্জিত ডলার অধিক মূল্যবান। এও তাকে শেখাবেন, কিভাবে পরাজয়কে মেনে নিতে হয় এবং কিভাবে বিজয়োল্লাস উপভোগ করতে হয়। হিংসা থেকে দূরে থাকার শিক্ষাও তাকে দিবেন। যদি পারেন নীরব হাসির গোপন সৌন্দর্য তাকে শেখাবেন। সে যেন আগেভাগেই এ কথা বুঝতে পারে- যারা পীড়নকারী তাদেরই সহজে কাবু করা যায়। বইয়ের মাঝে কি রহস্য আছে তাও তাকে বুঝতে শেখাবেন। আমার পুত্রকে শেখাবেন – বিদ্যালয়ে নকল করার চেয়ে অকৃতকার্য হওয়া অনেক বেশী সম্মানজনক। নিজের উপর তার যেন সুমহান আস্থা থাকে। এমনকি সবাই যদি সেটাকে ভুলও মনে করে। তাকে শেখাবেন, ভদ্রলোকের প্রতি ভদ্র আচরণ করতে, কঠোরদের প্রতি কঠোর হতে। আমার পুত্র যেন এ শক্তি পায়- হুজুগে মাতাল জনতার পদাঙ্ক অনুসরণ না করার। সে যেন সবার কথা শোনে এবং তা সত্যের পর্দায় ছেঁকে যেন ভালোটাই শুধু গ্রহণ করে- এ শিক্ষাও তাকে দিবেন।
সে যেন শিখে দুঃখের মাঝে কীভাবে হাসতে হয়। আবার কান্নার মাঝে লজ্জা নেই একথা তাকে বুঝতে শেখাবেন। যারা নির্দয়, নির্মম তাদের সে যেন ঘৃণা করতে শেখে। আর অতিরিক্ত আরাম-আয়েশ থেকে সাবধান থাকে।

আমার পুত্রের প্রতি সদয় আচরণ করবেন কিন্তু সোহাগ করবেন না। কেননা আগুনে পুড়েই ইস্পাত খাঁটি হয়। আমার সন্তানের যেন অধৈর্য হওয়ার সাহস না থাকে, থাকে যেন সাহসী হওয়ার ধৈর্য। তাকে এ শিক্ষাও দিবেন- নিজের প্রতি তার যেন সুমহান আস্থা থাকে আর তখনই তার সুমহান আস্থা থাকবে মানবজাতির প্রতি।

ইতি
আপনার বিশ্বস্ত আব্রাহাম লিংকন।

ইংলিশ ভার্সনঃ

He will have to learn, I know, that all men are not just and are not true. But teach him if you can, the wonder of books.. but also give him quiet time to ponder the eternal mystery of birds in the sky, bees in the sun and flowers on a green hillside.

In school, teach him it is far more honorable to fall than to cheat…..

Teach to have faith in his own ideas, even if everyone tells him he is wrong.

Teach him to be gentle with gentlepeople and tough with the tough.

Try to give my son the strength not to follow the crowd when everyone getting on the bandwagon…

Teach him to listen to all men; but teach him also to filter all he hears on a screen of truth, and take only the good that comes through.

Teach him, if you can, how to laugh when he is sad… Teach him there is no shame in tears.

Teach him to scoff at cynics and to be beware of too much sweetness.. Teach him to sell his brawn and brain to highest bidders, but never to put a price on his heart and soul. Teach him to close his ears to a howling mob.. and stand and fight if thinks he is right.

Treat him gently, but do not cuddle him, because only the test of fire makes fine steel. Let him have the courage to be impatient.. Let him have the patience to be brave. Teach him always to have sublime faith in himself, because then he will have faith in humankind.

This is a big order, but see what you can do. . He is such a fine little fellow my son!

– Abraham Lincoln