গুগল ট্রান্সলেট (Google Translate) কি এবং এর ব্যবহার

গুগল ট্রান্সলেট হচ্ছে গুগলের একটা অনলাইন সার্ভিস, যা দিয়ে এক ভাষার লেখাকে অন্য ভাষায় ভাষান্তরিত করা হয়। একে অনুবাদ বলা যায় না, কারন এটি এক ভাষার কোন বাক্য কে অন্য ভাষায় সম্পূর্ন রূপে অনুবাদ করতে পারে না। এটি শুধু এক ভাষার বাক্যের প্রত্যেক শব্দকে অনুবাদ করে এর নিজের আয়ত্বে থাকা কিছু বাক্যের সাথে মিলিয়ে আপনাকে একটা করে বাক্য সাজিয়ে দেয়। এই বাক্যটি কোন গ্রামাটিকাল রুলে সাজানো থাকবে না, তবে আপনি মোটামুটি বুঝতে পারবেন যে আসলে ঐ বাক্যে কি বলা হচ্ছে। এটি প্রথম ভাষাকে শব্দান্তর করে এর বিশাল শব্দ ভান্ডার থেকে এবং বাক্য সাজায় এর সংগ্রহে থাকা উদাহরন থেকে। যে কোন বাক্যকে ভাষান্তরিত করার সময় এর নিজের সংগ্রহে থাকা উদাহরনের যে বাক্যের সাথে ঐ বাক্যটি মোটামুটি মিলে যায় তার আকারে এটি ট্রান্সলেট করা বাক্যটিকে সাজিয়ে দেয়। এ জন্য এতে কমন বাক্য গুলোর সঠিক ভাষান্তর পাওয়া গেলেও, একটু জটিল হলেই এটি সঠিক ভাবে ট্রান্সলেট করতে পারে না। তবে এটি মোটামুটি কাজ চালিয়ে যাবার মত ভাষান্তরিত করতে পারে। এটি ২০০৬ এর দিকে চালু হলেও এতে বাংলা ভাষা যুক্ত হয়েছে এই বছরে। তবে উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে এটি ইন্ডিয়ান বাংলা হিসেবেই চালু হয়েছে। এটি বর্তমানে ৬০+ ভাষা সাপোর্ট করে। এর উন্নয়ন কাজ এখনো চলছে। আরো বিস্তারিত জানতে এখানে দেখতে পারেন। আশা করি গুগল ট্রান্সলেট সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা হয়েছে। এখন এটির ব্যবহার বিধি দেখা যাক।

ব্যবহার বিধিঃ

এর ব্যবহার বিধি পানির মত সহজ। তারপরও দেখিয়ে দিচ্ছি🙂 প্রথমে গুগল ট্রান্সলেটর চালু করুন।
গুগল ট্রান্সলেটর এর ঠিকানা – translate.google.com
তাহলে নিচের মত একটি পেজ দেখতে পাবেন।

ক্রমিক নং অনুযায়ী মিলিয়ে পড়ুনঃ
1. এখানে আপনি কোন ভাষা থেকে ট্রান্সলেট করবেন তা দেখিয়ে দিন। এটি না দেখিয়ে দিলেও হয়। কারন আপনি লেখা ইনপুট দিলে এটি সংক্রিয় সে ভাষা সিলেক্ট করে নেয়।
2. এখানে আপনি কোন ভাষায় ট্রান্সলেট করবেন তা দেখিয়ে দিন। যেমনঃ বাংলার জন্য Bengali.
3. এখানে ক্লিক করলে আপনার দেয়া লেখা ট্রান্সলেট হবে এবং তা ৫নং বাক্সে দেখাবে।
4. এখানে যে বাক্যটি বা প্যারাটি ট্রান্সলেট করতে হবে তা লিখুন।
5. এখানে ট্রান্সলেট করা লেখা দেখা যাবে।

সুবিধা সমূহঃ

১. গুগল ট্রান্সলেট এ কোন শব্দের আল্টারনেট শব্দ অর্থাৎ একই ধরনের শব্দ দেখার সুবিধা আছে। এ জন্য ট্রান্সলেট হওয়া অংশে অর্থাৎ ৫নং অংশে ফলাফলের উপর মাউস পয়েন্টার রেখে বাম বাটন চাপলেই অল্টারনেট শব্দ গুলো দেখা যাবে এবং ঐ শব্দটি আদি ভাষার কোন শব্দের অর্থ তাও দেখাবে। যেমনঃ

২. উপরের চিত্রে একটা কালো বাক্সে দেখতে পাচ্ছেন, এতে ক্লিক করে আপনি ইংলিশ বাক্যটির উচ্চারনও শুনতে পারবেন :)।

৩. গুগল ট্রান্সলেট এর বড় সুবিধা হল এটি শুধু বাক্য বা প্যারা ট্রান্সলেট করতে পারে না, এটি সম্পূর্ন ওয়েব সাইটও ট্রান্সলেট করতে পারে। কোন সাইটকে ট্রান্সলেট করতে চাইলে ৪নং বাক্সে সে সাইটের ঠিকানাটি লিখুন এবং একটু অপেক্ষা করুন বা ৩নং বাটনটি অর্থাৎ Translate বাটনটি ক্লিক করুন। তাহলে দেখবেন ৫নং বক্সে একটি লিঙ্ক এসেছে, এতে ক্লিক করলেই আপনি ঐ সাইটের সম্পূর্ন ট্রান্সলেট দেখতে পাবেন।

৪. ফায়ারফক্সে গুগল ট্রান্সলেটরের জন্য একটি অ্যাড-অনও আছে। এর ঠিকানা – addons.mozilla.org/en-US/firefox/addon/google-translator-for-firefox/
এটি ইনস্টল করে এর Option থেকে বাংলা বা আপনি যে ভাষা চান তা সিলেক্ট করে দিন। তারপর ওয়েব সাইটের যে কোন লাইন সিলেক্ট করে রাইট ক্লিক করে ‘Translate selection with Google Translate’ এ ক্লিক করলেই ঐ সিলেক্ট করা বাক্যটির ট্রান্সলেট দেখতে পাবেন।

এগুলোই এর প্রধান সুবিধা। আমি গুগল ট্রান্সলেট সম্পর্কে যা জানি তাই আপনাদের সামনে তুলে ধরলাম। আমি মানুষ, তাই আমার ভুল হতেই পারে। তাই পোষ্টে কোন ভুল হলে তা কমেন্টে বলবেন। আজ এ পর্যন্তই। কোন সমস্যা হলে কমেন্টে বলবেন।
ধন্যবাদ।

2 thoughts on “গুগল ট্রান্সলেট (Google Translate) কি এবং এর ব্যবহার

কিছু বলে যান

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s